Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

রবিবার ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » নারী ও শিশু 

চলন্ত বাসে দুই বোনকে গণধর্ষণ নিয়ে তোলপাড়

চলন্ত বাসে দুই বোনকে গণধর্ষণ নিয়ে তোলপাড়
ওরা ধর্ষক
এম.আরিফুল ইসলাম ১৬ মার্চ ২০১৬, ৮:৪৮ অপরাহ্ন Print

বরিশাল: কলকাতা, মুম্বাই বা ভারতের উত্তর প্রদেশের ঘটনা নয়। খোদ বাংলাদেশের বরিশালে চলন্ত বাসে দুই বোন গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তবে দেশেও চলন্ত বাসে ধর্ষণের এটি প্রথম ঘটনা নয়। কিন্তু এক সঙ্গে দু’বোনকে চলন্ত বাসে গণধর্ষণ হয়তো এটাই প্রথম।

জানা গেছে, বরিশাল-বানারীপাড়া সড়কে সেবা পরিবহনের শ্রমিক কর্তৃক দুই বোন গণধর্ষণের শিকার হন। এ ঘটনার দেড় মাস পর  মঙ্গলবার থানায় মামলা দায়ের করেন এক ধর্ষিতার স্বামী। পরে মামলার আসামি ৫ ধর্ষককে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

আটকৃত ধর্ষকরা হলো- বরিশাল নগরীর নথুল্লাবাদ বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য রনি, তারেক, দেবাশিষ, সুজন ও নাসির। তবে মিজান নামে আরও এক ধর্ষক পালাতক রয়েছে বলে থানার ওসি রেজাউল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে বুধবার  তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়। পাশাপাশি এদিন ধর্ষিতাদেরও জবানবন্ধি নেন আদালত।

পুলিশ জানিয়ে, বাদীর অভিযোগের ভিত্তিতে ধর্ষকদের গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ধর্ষণের কথা স্বীকার করে। পরে তাদেরকে বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্টেট আদালতে হাজির করা হয় এবং আদালত তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করে। এদিকে বুধবার ধর্ষিতাদের জবানবন্ধি রেকর্ড করেছে আদালত।

মামলার রেকর্ড সূত্রে ওসি বলেন, গত ২৩ জানুয়ারি গভীর রাতে বানারীপাড়ার চাখারের দুই তরুণী কুয়াকাটা থেকে বরিশালে আসে। বরিশাল থেকে বানারীপাড়া রুটের সেবা পরিবহন নামের একটি বাসে চাখারে বাবার বাড়িতে যাচ্ছিল। তারা দু’জন সম্পর্কে খালাত বোন।

এ সুযোগে নথুল্লাবাদ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড থেকে রামপট্টি পর্যন্ত দুই তরুণীকে বাসের মধ্যে আটকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে বাসে থাকে চালক, হেলপার এবং সুপারভাইজারসহ ৬ শ্রমিক।

বিষয়টি নিয়ে তুরুণীরা মামলা করার প্রস্তুতি নিলেও এতোদিনে শ্রমিক নেতাদের চাঁপের মুখে তা পেরে উঠছিলো না বলেও জানান ওসি।

তরুণীদের অভিযোগ, বরিশাল জেলা শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা ধর্ষণের ঘটনাটি মীমাংসার কথা বলে এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করে। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার রাতে ধর্ষণের শিকার এক তরুণীর স্বামী বাদী হয়ে মেট্রোপলিন বিমানবন্দর থানায় ৬ জনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

এয়ারপোর্ট থানার সহকারী পুলিশ কমিশনার(এসি) মো. আজাদ রহমান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, মামলা দায়েরের পর গভীর রাত পর্যন্ত থানা পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় নথুল্লাবাদসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ধর্ষকদের আটক করা হয়।

তবে এর মধ্যে মিজান নামে এক ধর্ষক পালাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানিয়েছেন মো. আজাদ।

ব্রেকিংনিউজ/এইচএস



আপনার মন্তব্য

নারী ও শিশু বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং