Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » তথ্য ও প্রযুক্তি 

‘আইসিটির মাধ্যমে সবচেয়ে উপকার হয়েছে দুর্নীতি বন্ধে’

‘আইসিটির মাধ্যমে সবচেয়ে উপকার হয়েছে দুর্নীতি বন্ধে’
প্রতিবেদক ০৫ মার্চ ২০১৬, ৭:১৬ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, আইসিটির মাধ্যমে সবচেয়ে উপকার হয়েছে দুর্নীতি বন্ধে। যার মাধ্যমে বিভিন্ন উপায়ে অপরাধীদের ধরা সম্ভব হচ্ছে।

৩ দিনব্যাপী বাংলাদেশে আইসিটি এক্সপো-২০১৬ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শনিবার বিকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে একটি আধুনিক বাংলাদেশ হিসেবে দেখতে চাই। এ জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে অর্ধেক কাজ আমরা শেষ করেছি। বাকি আছে অর্ধেক।

অনেক নতুন উদ্ভাবন এ প্রদর্শনীতে উঠে এসেছে, যা আগামীতে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে বড় ভূমিকা রাখবে বলেও মন্তব্য করেন মুহিত।

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আইসিটি সেক্টরের সাথে দেশকে আমরা দ্রুত গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। গত বছর বাংলাদেশ ৬ লক্ষেরও বেশি ল্যাপটপ আমাদানি করেছে। আমরা এই আমদানির সাথে থাকতে চাই না। সেই লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

পলক আরও বলেন, আমাদের পাশের দেশের থেকে আমাদের দেশে বিনিয়োগের পরিমাণ অনেক বেশি। বিনিয়োগের জন্য আমাদের ৩৫০ একর জায়গার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যেখানে দেশ-বিদেশের বিনিয়োগকারীরা আইসিটি খাতে বিনিয়োগ করবেন।

‘ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে বিনিয়োগের জন্য আমাদের জানানো হয়েছে। আশাকরি আমরা এখানে বিপুল পরিমাণ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবো,’ বলেন প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ, আইসিটি সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, কম্পিউটার সমিতির সভাপতি এএইচএম মাহফুজুল আরিফ বক্তব্য রাখেন।

মেলার মূল লক্ষ্য ছিলো প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসমূহকে বাংলাদেশে প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনের ব্যাপারে উৎসাহ করা। এবারের মেলায় ছিলো ৫৯টি প্যাভেলিয়ন ও ৭০টি ছোট-বড় স্টল।

প্রদর্শনীতে শিশুদের জন্য ছিলো ডিজিটাল চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্ত হয়ে স্কুল শিক্ষার্থীরা অংশ নেয় প্রতিযোগিতায়। ডিজিটাল চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ছাড়াও অনুষ্ঠিত হয় কুইজ কনটেস্ট ও সেলফি প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এবারের মেলায় হাজারো মানুষের সমাগম হয়। সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলা এই মেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য প্রদর্শন করে এবং ১১টি সেমিনারে আইসিটির নানা বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

৩ দিনব্যাপী জমকালো প্রদর্শনীর মেলা প্রাঙ্গণে প্রতিদিনই ছিল প্রযুক্তি প্রেমীদের উপচে পড়া ভিড়। দ্বিতীয় বারের মত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দেশের তথ্যপ্রযুক্তির এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

‘মিট ডিজিটাল বাংলাদেশ’ স্লোগানে সরকারের আইসিটি ডিভিশন এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) যৌথভাবে এ মেলার আয়োজন করে।

ব্রেকিংনিউজ/এসিডিটি/এইচএস



আপনার মন্তব্য

তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং