Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » অনুসন্ধান 

জঙ্গিবাদের সাতকাহন-২

জঙ্গিদের সদস্য সংগ্রহে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

জঙ্গিদের সদস্য সংগ্রহে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম
শাফি উদ্দিন আহমদ ০৫ ডিসেম্বর ২০১৫, ৭:৩৭ অপরাহ্ন Print
এ সম্পর্কিত আরও খবরঃ

ঢাকা: দেশব্যাপী নতুন করে সংগঠিত হয়ে নাশকতার চেষ্টা চালানো জঙ্গি সংগঠনগুলো নিয়ে ব্রেকিংনিউজের ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজকের পর্বে থাকছে নতুন সদস্য সংগ্রহ এবং নিজেদের মধ্যে বার্তা আদান-প্রদানের মাধ্যম সম্পর্কিত তথ্য।

নিজেদের গোপন মিশন এবং সদস্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেসবুক, ভাইবার, হোয়াটসআপ, ইমু, ট্যঙ্গো, উইচ্যাট ইত্যাদির সর্বোচ্চ সুবিধা গ্রহণ করে বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠন। ভার্চুয়াল এই ব্যবস্থায় তারা দেশে বিদেশে তথ্য-বার্তা আদান-প্রদান করে।

গত বুধবার রাজধানীর মতিঝিল এলাকা থেকে জেএমবির আদলে গড়া নতুন সংগঠন ‘মুজাহিদ অব বাংলাদেশে’র ছয় সদস্যকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তারা ফিলিস্তিনের সংগঠন ‘ইন্তেফাদার’ অনুসরণে নিজেদেরকে সংগঠিত করার চেষ্টা করছিল বলে গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেসবুকের মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করা, সদস্য সংগ্রহ, অর্থ সংগ্রহসহ বিভিন্ন ধরনের জঙ্গি কার্যক্রম পরিচালনা করছিল এই ছয় জন। তারা ঢাকায় একজন পীরকে হত্যারও পরিকল্পনা করেছে। ফেসবুক বন্ধ রেখে সাইবার পেট্রোলিংয়ের মাধ্যমে তাদের সম্পর্কে তথ্য পাওয়া গেছে বলে গোয়েন্দারা জানান।

জঙ্গিদের নিয়ে কাজ করছে এরকম সরকারের একাধিক সূত্র থেকে জানা যায়, ইসলাম ধর্মের নামে জঙ্গি কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগে নিষিদ্ধ ঘোষিত শাহাদাত-ই-আল-হিকমা, জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি), জাগ্রত মুসলিম জনতা বাংলাদেশ (জেএমজেবি), হরকাতুল জিহাদ বাংলাদেশ (হুজিবি) ও হিযবুত তাহরীর এবং আনসারুল্লাহ বাংলা টিম (এবিটি) বাংলাদেশে তাদের সদস্য সংগ্রহের মতো গোপন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এক্ষেত্রে তাদের কৌশল হচ্ছে প্রথমে সামাজিক মাধ্যমে বন্ধুত্ব করা। তারপর ঐ নতুন বন্ধুকে টার্গেটে নিয়ে তার মনের ভেতরে কথিত ‘জিহাদী চেতনা’র বীজ বুনা। নানা রকম ভূল-ভ্রন্তির মাধ্যমে মগজ ধোলাই করে দেশে ইসলামি শাসন ব্যবস্থা কয়েমের দাওয়াত দিয়ে সংগঠনে অন্তর্ভূক্ত করা। এরপর তাকে ডেকে নেয়া হয় জঙ্গি নেতাদের গোপন আস্তানায়, আর সেখানে বাকি কাজটুকু সারেন বড় নেতারা। এক পর্যায়ে সকল ধাপ পাড়ি দিয়ে কলেজ বা ইউনিভার্সিটির সাধারণ এক ছাত্র হয়ে উঠে  স্বশস্ত্র জঙ্গি।

নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ ব্রেকিংনিউজকে বলেন, দেশীয় জঙ্গিদের সঙ্গে আইএস বা আলকায়েদার কোনো যোগাযোগ আছে এরকম কোনো জোরালো প্রমাণ এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে ভার্চুয়াল মাধ্যমে একটি চক্রের সঙ্গে আন্তর্জাতিক জঙ্গিদের যোগাযোগ রয়েছে। আর এদেশের নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনগুলোর নাম বিভিন্ন হলেও সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কাজে লাগিয়ে প্রচার-প্রচারণা এবং ভ্রান্তি ছড়িয়ে সদস্য সংগ্রহের পন্থা মূলত একই।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম ব্রেকিংনিউজকে জানান, ফেসবুক বন্ধ রেখে সাইবার পেট্রোলিংয়ের মাধ্যমে দেশে প্রায় ২৩ টির বেশি জঙ্গি সংগঠনের অস্তিস্ত্ব পাওয়া গেছে যারা বিভিন্ন প্রক্সি সার্ভার ব্যবহার করে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করছে। এসব আইডি আমাদের কঠোর নজরদারিতে আছে।

ব্রেকিংনিউজ/এসইউএ/এমআর



আপনার মন্তব্য

অনুসন্ধান বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং