Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » অনুসন্ধান 

পাপড় বানিয়ে চলছে প্রকাশের সংসার

পাপড় বানিয়ে চলছে প্রকাশের সংসার
আরাফাতুজ্জামান ০৩ অক্টোবর ২০১৫, ৯:১৮ পূর্বাহ্ন Print
এ সম্পর্কিত আরও খবরঃ

ঝিনাইদহ: দিলখুশ পাপড় তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার প্রকাশ সাহা। এই দিলখুশ পাপড় তৈরি করে তিনি চালান অভাবের সংসার।পাশাপাশি ২ মেয়ের পড়াশোনার খরচ জোগান তিনি।

প্রকাশ সাহা উপজেলার ১৫ নং ফুলহরি গ্রামের ফুলহরি গ্রামের বাসিন্দা। জমি বলতে বসত বাড়ির ৫ শতাংশ ছাড়া কিছুই নাই। বয়স ৪৫ বছরের কাছাকাছি। মা, স্ত্রী ও মেয়েসহ ৫ জনের সংসার। বড় মেয়ে ফুলহরি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৬ষ্ট শ্রেণির ছাত্রী এবং ছোট মেয়ে ১ম শ্রেণির ছাত্রী। তারা পড়ালেখার ফাঁকে বাবার কাজে সাহায্য করে।

জানা গেছে, দিলখুশ পাপড় তৈরি করা কাজ শুরু আগে প্রকাশ সাহা গ্রামের বিভিন্ন জনের পান বরজে কাজ করতেন। পরে এই সকল পান বরজ নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণে সে জীবিকা নির্বাহের জন্য দিলখুশ পাপড় তৈরি শুরু করেন।

দিলখুশ পাপড় সম্পর্কে প্রকাশ সাহা জানান, সে প্রায় দীর্ঘ ১০ বছর ধরে এই দিলখুশ পাপড় তৈরি করে আসছে। ময়দা, হলুদ ও লবণসহ বিভিন্ন মশলা দ্বারা তৈরি কার হয় এই দিলখুশ পাপড়। বছরের ভাদ্র থেকে মাঘ এই ৬ মাস এর চাহিদা থাকে বেশি। আর বর্ষা এটা তৈরি করা কষ্টসাধ্য হয়ে যায়। কারণ পাপড় তৈরি পর তা রোদে শুকাতে হয়। তার তৈরি এই দিলখুশ পাপড় জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ মাগুরা, চুয়াডাঙ্গার ও কুষ্টিয়া বিক্রয় হয়ে থাকে। প্রতি কেজি দিলখুশ পাপড় তিনি ৭৫-৮০ হিসেবে বিক্রয় করে থাকেন। তা থেকে তার প্রতিদিন ১৫০-২০০ টাকা আয় হয়।

দিলখুশ পাপড় তৈরি করা খুব কষ্টসাধ্য। প্রকাশ সাহা প্রতিদিন রাত ১ টা থেকে কাজ শুরু করে সারা দিনে মাত্র ১০ কেজি দিলখুশ পাপড় তৈরি করতে পারেন। যা দিয়ে তার ৫ জনের অভাবের সংসার ও ছেলে মেয়ে লেখা-পড়ার খরচ চালানো কষ্ট কর হয়ে পড়ছে।

তিনি আরও বলেন সরকারের পক্ষ থেকে যদি তার মায়ের জন্য বিধবা বা বয়স্ক ভাতা এবং সেই সাথে তার ব্যবসার জন্য ঋণের ব্যবস্থা হয়। তাহলে হয়তো তার অভাবের সংসারে সচ্ছলতা ফিরে আসবে।

ব্রেকিংনিউজ/প্রতিনিধি/এমএইচ



আপনার মন্তব্য

অনুসন্ধান বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং