Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » বিজ্ঞান বিশ্ব 

কেয়ামতের দ্বারপ্রান্তে পৃথিবী!

কেয়ামতের দ্বারপ্রান্তে পৃথিবী!
বিজ্ঞান বিশ্ব ডেস্ক ২৭ জানুয়ারী ২০১৬, ১২:০৭ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: কেয়ামতের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে পৃথিবী। কেয়ামত ঘড়ির নির্মাতা বিজ্ঞানীরা এ তথ্য জানিয়েছেন। পরমাণু বিজ্ঞান বিষয়ক বুলেটিন বলছে, কেয়ামত ঘড়ি অনুসারে মধ্যরাত আসতে ৩ মিনিট বাকী। এই মধ্যরাত হচ্ছে কেয়ামত। অর্থাৎ কেয়ামত ঘড়ি অনুসারে ৩ মিনিট বাকী কেয়ামতের। খবর আল-জাজিরার।

আসলে কেয়ামত ঘড়ি বলতে একটি রুপক ঘড়িকে বোঝানো হয়েছে। পৃথিবী অশান্ত হয়ে উঠলে এ ঘড়ি সবাইকে সতর্ক করবে বিষয়টি সে রকম।

পরমাণু অস্ত্র চুক্তি, জলবায়ু পরিবর্তন ইত্যাদি পৃথিবীর স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে।

বুলেটিনের চেয়ারম্যান লরেন্স ক্রাউস বলেন, ইরানের পরমাণু চুক্তি এবং প্যারিস জলবায়ু চুক্তি সকলের জন্য ভালো খবর। তবে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি, উত্তর কোরিয়ার হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষা এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে জলবায়ু চুক্তি মানছে না এসব ঘটনা ক্রমেই পৃথিবীকে ঝুঁকির মুখে ফেলছে।

বুলেটিনের বিজ্ঞানীরা গত বছর প্রতীকী ঘড়ির মিনিটের কাঁটা মধ্যরাত থেকে ৫ মিনিটের পরিবর্তে ৩ মিনিটে এগিয়ে এনেছেন। এবছরও মধ্যরাত থেকে ৩ মিনিট দূরে থাকবে ঘড়িটি। ১৯৮৩ সালের পর এটাই মধ্যরাতের সবচেয়ে নিকটবর্তী সময়।

পরমাণু বিজ্ঞানীদের বুলেটিন ১৯৪৫ সালে শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন বিজ্ঞানী প্রতিষ্ঠা করেন। এই বিজ্ঞানীরাই বিশ্বের প্রথম পারমাণবিক বোমা তৈরি করেছিলেন।

ঘড়ির সময় নির্ধারণ করেন বুলেটিনের বিজ্ঞান ও নিরাপত্তা বোর্ড। এই বোর্ড পদার্থবিদ, পরিবেশ বিজ্ঞানীসহ ১৬ জন নোবেল পুরস্কার জয়ী বিজ্ঞানীর সমন্বয়ে গঠিত।

১৯৫৩ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করার পরপরই যুক্তরাষ্ট্র একটি হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করায় ‘কেয়ামতের ঘড়ি’তে মিনিটের কাঁটা মধ্যরাতের সবচেয়ে নিকটবর্তী ২ মিনিটে নিয়ে আসা হয়েছিল।

১৯৯১ সালে ঠাণ্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার পরে মিনিটের কাঁটা মধ্যরাত থেকে সবচেয়ে দূরবর্তী ১৭ মিনিটে স্থাপন করা হয়েছিল।

ব্রেকিংনিউজ/এসডি



আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞান বিশ্ব বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং