Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » ধর্ম 

যীশু তামিল হিন্দু ছিলেন, শেষ সময় হিমালয়ে কাটান!

যীশু তামিল হিন্দু ছিলেন, শেষ সময় হিমালয়ে কাটান!
ধর্ম ডেস্ক ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, ৩:২১ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: খ্রিস্টান ধর্মের প্রবর্তক যীশু খ্রিস্ট তামিল হিন্দু হিসেবে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। জীবনের শেষ দিন হিমালয়ে এসে শিবে পূজা করে ধ্যান যোগে দেহ ত্যাগ করেন। ১৯৪৬ সালে লিখিত এক বইতে এ দাবি করা হয়েছে। বইটি পুনর্মুদ্রণ করা হলে এ তথ্য নতুন করে জানতে পারে ভারতের গণমাধ্যম।

বইটি লিখেছেন গণেশ দামোদর (বাবারাও) । গণেশ দামোদর হচ্ছেন বিনায়ক দামোদরের ( ভীর) সাভারকারের বড় ভাই। গণেশ দামোদর ভারতের রাষ্ট্রীয় স্বয়েমসেবক সংঘের (আরএসএসের) অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। খবর জিনিউজের।

যে বইতে এসব তথ্য দেয়া হয়েছে তার নাম খ্রিস্ট পরিচয়। বইতে বলা হয় জন্ম সূত্রে যীশু খ্রিস্ট ছিলেন বিশ্বকর্মা ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের এবং খ্রিস্টানিটি হচ্ছে হিন্দুদের একটি শাখা। সাভারকার স্মরণ অনুষ্ঠানে বইটি প্রকাশ করা হবে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি।

বইটিতে খ্রিস্টের জন্মস্থান সম্পর্কে কোনো বর্ণনা নেই। তবে বর্তমান ফিলিস্তিন ও আরব ভূখণ্ডকে হিন্দু ভূমি হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। যীশু খ্রিস্ট ভ্রমণ করতে করতে ভারত আসেন। বইতে যেসব বিষয় বস্তু দাবি করা হয়েছে তার চুম্বক অংশগুলো হচ্ছে:

১. যীশু খ্রিস্ট ছিলেন তামিল হিন্দু।
২. যীশু খ্রিস্টের আসল নাম কেসাও কৃষ্ণা।
৩. যীশুর মাতৃভাষা ছিল তামিল।
৪. যীশুর গায়ের রং ছিল কালো।
৫. ১২ বছর বয়সে যীশুর উপনয়ন হয়।
৬. যীশুর পরিবার ভারতীয় পোশাক পরিধান করত।
৭. খ্রিস্টান কোনো আলাদা ধর্ম ছিল না। এটি হিন্দু ধর্মেরই একটি শাখা
৮. যীশুকে স্বৈরাচাররা ক্রুশবিদ্ধ করেন। কিন্তু যীশু যোগ চর্চা ও আধ্যাত্মিক বিজ্ঞানের চর্চা করতেন। যীশুকে আয়ুর্বেদ চিকিৎসা দ্বারা বাঁচানো হয়েছিল।
৯. জীবনের শেষ সময় যীশু হিমালয়ে কাটিয়েছেন। হিমালয়ে যীশুর তৈরি একটি মঠ আছে। সেই মঠটি কাশ্মীরে হবে। যীশু শিবের পূজা করতেন এবং শিব দর্শন অর্জন করেন।
১০. ৪৯ বছর বয়সে যীশু যোগ সাধনা দ্বারা দেহ ত্যাগ করেন।
১১. আরবিতে বহু শব্দ আছে যা সংস্কৃত ও তামিল শব্দ।
১২. ফিলিস্তিনে যে আরবি ভাষা তা তামিল ভাষার একটি ভার্সন বলা যায়।

ব্রেকিংনিউজ/এসডি



আপনার মন্তব্য

ধর্ম বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং