Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » রাজনীতি 

ইউপি নির্বাচনে সহিংসতায় নিহত ৪, আহত শতাধিক

ইউপি নির্বাচনে সহিংসতায় নিহত ৪, আহত শতাধিক
ফাইল ছবি
নিউজ ডেস্ক ৩১ মার্চ ২০১৬, ৩:৩৮ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলাকালে যশোর, জামালপুর এবং কেরানীগঞ্জে সংঘর্ষ ও গুলিতে শিশুসহ ৪ জন নিহত হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে আরও শতাধিক। প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ আটক করা হয়েছে অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে।

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণে কেন্দ্র দখল, জাল ভোট নিয়ে প্রশাসন ও প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় এ ঘটনা ঘটে।

ব্রেকিংনিউজ প্রতিনিধিরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

যশোর: বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যশোর সদরের চাঁচড়া ইউনিয়নের চাঁচড়া বাজার এলাকার দারোগার মোড়স্থ ভাতুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে গোলাপ হোসেন (৭০) নামে এক বৃদ্ধ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন।

নিহত গোলাপ ভোটকেন্দ্রের বাইরে মুড়ি বিক্রি করছিলেন। তার বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। তবে তিনি শহরতলীর খোলাডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা বলে অনেকে দাবি করেছেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস আলী জানান, চাঁচড়ার ভোটকেন্দ্রের বাইরে দুই পক্ষের মধ্যে বোমাবাজি ও গোলাগুলি হয়। এসময় ভোটকেন্দ্রের বাইরে মুড়ি বিক্রি করা গোলাপের কপালে একটি গুলি লাগলে তিনি মারা যান। তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কেরানীগঞ্জ: ঢাকার কেরানীগঞ্জের হযরতপুর ইউনিয়নের ৫০ নম্বর মধুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দুই চেয়ারম্যানপ্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলির মধ্যে পড়ে শুভ ঘোষ (১০) নামে এক শিশু এবং রনি (২০) নামে এক তরুণ নিহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে ওই কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যানপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। শিশু সুমন ওই গোলাগুলির মাঝখানে পড়ে গেলে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। এসময় সুমনের বাবা ও মা ভোট দেয়ার জন্য ভোটকেন্দ্রের লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

অপরদিকে রনিকে গুরুতর অবস্থায় দুপুরে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকরা ‍মৃত ঘোষণা করেন।

জামালপুর: এছাড়া সকালে জামালপুর জেলার শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে তার পরিচয় জানা যায়নি।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় সারা দেশে ৪৭টি উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে এ নির্বাচন উপলক্ষে বেশ কয়েকটি এলাকায় দফায় দফায় সংঘর্ষ, কেন্দ্র দখল, গোলাগুলি ও ভোট বর্জনসহ নানা সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে ৪ জন নিহত ছাড়াও শতাধিক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এছাড়া ব্যালট পেপারে সিল মারার অভিযোগে আটক করা হয়েছে প্রিজাইডিং ও সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ অন্তত অর্ধশত।

এর মধ্যে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে পুলিশের গুলিতে ৬ জন আহত হন। উপজেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভোট বর্জন।

লালমনিরহাটের হাতিবান্ধা উপজেলার সানিয়াজান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজনের ওপর প্রতিপক্ষের হামলার অভিযোগ। আহত অন্তত ১০ জন।

এদিকে যশোরের দুটি কেন্দ্রে একজন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও দুজন সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে ব্যালটে সিল মারার অভিযোগে আটক করেছে পুলিশ।

ব্রেকিংনিউজ/এইচএস



আপনার মন্তব্য

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং