Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শনিবার ২৩ জুন ২০১৮, ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » জাতীয় 

সাভারে স্থানান্তরিত হয়নি কোনও ট্যানারি

হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া ঢুকতে না দিতে কঠোর পদক্ষেপ

হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া ঢুকতে না দিতে কঠোর পদক্ষেপ
প্রতিবেদক ০১ এপ্রিল ২০১৬, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন Print

ঢাকা: শুক্রবার (১ এপ্রিল) থেকে রাজধানীর হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া ঢুকতে না দেয়ার সিদ্ধান্তে অনড় সরকার। এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট দফতর ও সংস্থাকে নির্দেশনা দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

হাজারীবাগ থেকে সভারে ট্যানারি শিল্প স্থানান্তরে অনেক চেষ্টা করেছে সরকার। ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, ৩১ মার্চে ডেডলাইন, পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের ১৯৩টি নোটিশ। কোনও কিছুতেই সরাতে পারেনি ট্যানারি শিল্প। এরকম শত চেষ্টা করেও শেষ পর্যন্ত ৩১ মার্চের মধ্যে একটি ট্যানারিও সাভারে নিতে পারেনি শিল্প মন্ত্রণালয়।

অপরদিকে ব্যবসায়ীরা সরকারের এমন সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন। তারা ফের ট্যানারি স্থানান্তরের সময় বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছেন। পাশাপাশি শর্ত শিথিল করে ক্ষতিপূরণের অর্থ দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।

আর শিল্প মন্ত্রণালয়ের আলটিমেটাম অনুযায়ী, গত রবিবার স্বরাষ্ট্র সচিব, ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ কমিশনার, পুলিশের ডিআইজি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, ট্যানারি মালিকদের দুটি সংগঠন বিএফএলএলএফইএ ও বিটিএকে এক চিঠি দিয়ে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার থেকে কাঁচাচামড়া হাজারীবাগে আর ঢুকতে দেয়া হবে না। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের জানানো হয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে নিয়মিত তা তদারকি করা হবে। শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশ প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। যদিও ট্যানারি মালিকরা স্থানান্তরের জন্য সময় চেয়ে আসছেন। কিন্তু তারা নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি। ট্যানারি দ্রুত স্থানান্তরের জন্য ক্ষতিপূরণের অর্থ দেওয়ার ক্ষেত্রে শর্ত শিথিল করে দেয়া হবে। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রকল্প পরিচালককে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ট্যানারি মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএলএলএফইএ) নেতারা বলেন, ট্যানারি মালিকরা দ্রুত স্থানান্তরের জন্য কাজ করছেন। অর্থ সংকটের কারণে পারছেন না। এ জন্য ক্ষতিপূরণের অর্থ দেয়ার ক্ষেত্রে শর্ত শিথিল করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, সরকারের কঠোর অবস্থানে না থেকে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা উচিত। ট্যানারি স্থানান্তরের জন্য জুন পর্যন্ত সময় দেয়া দরকার। আগামী তিন মাস সময় দিলে সব ট্যানারি যেতে পারবে।

তারা আরও বলেন, ব্যবসায়ীদের প্রতি সরকার কঠোর হলে তারা সংকটে পড়বেন। এতে ট্যানারি মালিকরা আন্দোলনে যেতে পারেন। চামড়া ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মধ্যে জটিলতার তৈরি হবে। অন্যদিকে হাজারীবাগে চামড়া না এলে তা পাচার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এতে চামড়া খাতের ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবেন। সে জন্য তারা সময় বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলনে যেতে পারেন।

বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. সাখাওয়াত উল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, ট্যানারি স্থানান্তরের জন্য মালিকরা কাজ করছেন। আগামী জুনের মধ্যে বেশিরভাগ ট্যানারি স্থানান্তর হবে। জুন পর্যন্ত সময় দিলে আর কোনো জটিলতা তৈরি হবে না।

তিনি আরও বলেন, সরকারের কঠোর অবস্থানে ব্যবসায়ীরা হতাশ। হাজারীবাগে কাঁচাচামড়া ঢুকতে না দেওয়ার সিদ্ধান্তে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হবেন কাঁচাচামড়া ব্যবসায়ীরা। এতে ট্যানারি মালিকরাও চামড়া পাবেন না। তা পাচার হবে। এজন্যই ব্যবসায়ীরা দ্রুত যেতে চান। এ জন্য তারা কাজ করছেন। এখন তাদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সময় নির্ধারণ করে স্থানান্তর প্রক্রিয়া সহজ করার দাবি জানান তারা।

ব্রেকিংনিউজ/ডিএইচ



আপনার মন্তব্য

জাতীয় বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং