Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

১দিনে ৩ গরু ব্যাপারই না

১দিনে ৩ গরু ব্যাপারই না
ছবি: ব্রেকিংনিউজ
সুমন দত্ত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ৬:৫৪ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: কোরবানির ঈদে দুটি কাজ নিয়ে সবচেয়ে বেশি ভাবতে হয় সবাইকে। এক. পছন্দ মতো গরু কেনা। দুই. কোরবানি দেয়ার পর গরুর গোশত বানানো জন্য ভালো কসাইয়ের সন্ধান। প্রথমটি সহজে করা গেলেও পরের কাজটি সহজে করা যায় না। এ কারণে অনেকে ঈদের পরের দিন অথবা তৃতীয় দিন গরু কোরবানি দেয়।

কসাইরা সাধারণত কোরবানির দিন খুবই ব্যস্ত সময় কাটান। তাদেরই একজন পুরাণ ঢাকার সূত্রাপুরের কসাই মনির। দীর্ঘদিন ধরে তিনি কসাইয়ের কাজ করে আসছেন। কয়েকজন সাগরেদও বানিয়েছেন এই পেশায়। কোরবানির দিন ওস্তাদ মনির তার সাগরেদদের নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন মানুষের সেবায়। সেই কসাই মনিরের একান্ত সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছেন ব্রেকিংনিউজের সিনিয়র রিপোর্টার সুমন দত্ত। তাদের দুজনের আলাপনে উঠে এসেছে কোরবানি সংক্রান্ত সেরকমই নানা বিষয়।

ব্রেকিংনিউজ: আপনি নিজে কি পশু কোরবানি দেন?

মনির: না। আমি কোনও পশু কোরবানি দেই না।

ব্রেকিংনিউজ: একদিনে কয়টি গরুর গোশত সাইজ করতে পারেন?

মনির: একদিনে ৩টি গরু ব্যাপারই না। তবে ৩টির বেশি করা যায় না।

ব্রেকিংনিউজ: গোশত সাইজ করার কাজ কি আপনি একাই করেন?

মনির: আগে একাই করতাম। বয়স হয়ে যাচ্ছ। এখন আমার ছেলেরা করে।

ব্রেকিংনিউজ: আপনার ছেলেরা মানে?

মনির: যাদের আমি কাজ শিখিয়েছি তাদেরকে আমি নিজের ছেলের মতই ভালোবাসি। তাদেরকে নিজের ছেলের মতোই মনে করি।

ব্রেকিংনিউজ: খুব ভালো। আপনারা কতজন মিলে গরু গোশত সাইজ করেন?

মনির: কোরবানির দিন বেশি চাপ থাকায় প্রত্যেক গরুতে একজনের বেশি লোক দিতে পারি না।

ব্রেকিংনিউজ: গরুর গোশত বানাতে গরু প্রতি কত টাকা পারিশ্রমিক নেন?

মনির: সেটা নির্দিষ্ট নয়। তবে গরুর দাম অনুযায়ী টাকা নেয়া হয়।

ব্রেকিংনিউজ: তার মানে কি যার কাছে যেরকম?

মনির: আরে না। এটার একটা হিসাব আছে?

ব্রেকিংনিউজ: সেটা কি?

মনির: ধরুন। কোনও গরুর দাম ৫০ হাজার টাকা। আমরা তখন বলি হাজারে ৩০০ টাকা দিতে হবে। সে হিসেবে ১৫ হাজার টাকা। আবার অনেকে চুক্তিতে আসে। যেমন আমরা গরুর গোশত বানিয়ে দেব তারপর চুক্তি মোতাবেক  টাকা। সেটা ৮ হাজার হতে পারে অথবা ১০ হাজার। এভাবে হিসাবটা হয়। তখন গরু দেখার প্রয়োজন পড়ে। গরু না দেখে এই চুক্তিতে আমরা যাই না।

ব্রেকিংনিউজ: কোরবানির সময় কতক্ষণ কাজ করতে হয় আপনাদের?

মনির: সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। রাত ৮টার পর পয়সা দিলেও আমরা কাজ করি না। নিজেদের বিশ্রামের তো প্রয়োজন আছে।

ব্রেকিংনিউজ: হ্যাঁ, তাতো অবশ্যই।

ব্রেকিংনিউজ: সারা বছর আপনাদের যারা খোঁজ নেয়না এই কোরবানির ঈদের সময় তারাই খুব গুরুত্ব সহকারে আপনাদের খোঁজ নেয়। বিষয়টা কীভাবে দেখেন?

মনির: আমরা সারা বছর কাস্টমারদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখি। বাজারে যাদের সঙ্গে প্রতিদিন দেখা হয় তারাই আমাদেরকে নিয়ে যায় কাজ করতে। এতে ভালোই লাগে। ওই একটা দিন অনেকের মধ্যে ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে পারি।

ব্রেকিংনিউজ: যারা কোরবানি দেয় তাদের জন্য আপনার পরামর্শ কী?

মনির: তাদের জন্য একটাই পরামর্শ, গরু কোরবানি দিবেন পরিষ্কার পরিবেশে। গোশত বানানোর জন্য পর্যাপ্ত জায়গা দেবেন এবং সেটা হতে হবে পরিষ্কার। আপনি পরিষ্কার জায়গায় গোশত বানাতে দিলে আপনার গোশত পরিষ্কার থাকবে। ধুলা বালি লাগবে না। গোশত নষ্ট হবে না। পাশাপাশি পরিবেশও সুন্দর থাকবে।

ব্রেকিংনিউজ: ব্রেকিংনিউজের পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ।

মনির: ব্রেকিংনিউজকেও আমাদের পক্ষ থেকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ব্রেকিংনিউজ/এসডি/এমআর



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং