Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

‘আবৃত্তি মানুষকে মানুষ হতে শেখায়’

‘আবৃত্তি মানুষকে মানুষ হতে শেখায়’
সাক্ষাৎকার ডেস্ক ১৮ জুন ২০১৫, ৪:৩১ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: আবৃত্তি শিল্পের জন্য নিবেদিত প্রাণ কুমার লাভলু। জীবনের পুরোটা সময় যিনি আবৃত্তির জন্য উৎসর্গ করেছেন। মফস্বল শহরের গণ্ডি পেরিয়ে তিনি আবৃত্তির কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছেছেন। মঞ্চ থেকে শুরু করে বেতার ও টেলিভিশনেও একাধিকবার আবৃত্তি পরিবেশন করেছেন। কোনো এক বিকালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর চিলেকোঠায় কথা হয় এ আবৃত্তিশিল্পীর সঙ্গে। কথা বলেছেন ব্রেকিংনিউজের ভারপ্রাপ্ত নিউজরুম মডারেটর সালাহ উদ্দিন মাহমুদ

ব্রেকিংনিউজ: বৃষ্টিস্নাত শীতল বিকালে আপনাকে অফুরন্ত শুভেচ্ছা।
কুমার লাভলু: তোমাকেও শুভেচ্ছা। ব্রেকিংনিউজের জন্য সীমাহীন ভালোবাসা।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তি জগতের সঙ্গে আপনার সম্পৃক্ততা কখন থেকে?
কুমার লাভলু: ছোটবেলায় মায়ের মুখ থেকে রাক্ষস-খোক্কসের গল্প শোনা। এছাড়া ঘুমপাড়ানির গল্প বা ছড়া শোনা। মায়ের গল্প বা ছড়া বলার ঢং দেখে আবৃত্তির প্রতি আগ্রহ জন্মে। এরপর বাংলাদেশের একমাত্র প্রচারমাধ্যম বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে গোলাম মোস্তফা, হাসান ইমামদের আবৃত্তি শুনে ভালোবাসা জন্মায়। তখন ভাবতাম, এ মানুষগুলো এত সুন্দর করে কথা বলে কীভাবে? পরে কাজী আরিফ এবং প্রজ্ঞা লাবনীর আবৃত্তি ও উপস্থাপনা শুনে আকর্ষণ বাড়ে।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তিতে পথচলা...
কুমার লাভলু: প্রথম দিকে অডিও অ্যালবাম কিনে কিনে আবৃত্তি শুনতাম। কামরুল আহসান মঞ্জুর আবৃত্তি তখন প্রভাবিত করে। এছাড়া ওপার বাংলার পার্থ ঘোষ, গৌরি ঘোষ, জগন্নাথ বসু ও শাওলী মিত্রদের আবৃত্তি শুনতাম। শুনে শুনে পথচলা শুরু। একসময় শুধু শুনেছি-এখন শুনছি ও আবৃত্তি করছি।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তির ক্ষেত্রে কোনো সাংগঠনিক চর্চা।
কুমার লাভলু: ভালোবাসা থেকেই আমরা কয়েকজন ১৯৯৬ সালে ‘মাদারীপুর আবৃত্তি পরিষদ’ নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করি। ওই সংগঠনের আয়োজনে ১৯৯৭ সালে দর্শনীর বিনিময়ে শ্রুতি নাটক ‘নুরলদীনের সারাজীবন’ পরিবেশিত হয়। যেখানে সৈয়দ শামসুল হক ও আনোয়ারা সৈয়দ হক উপস্থিত ছিলেন। অভিনেতা আমিরুল হক চৌধুরী কাব্যনাট্যের প্রস্তাবনাটা করে দিয়েছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে আমি নুরলদীনের চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছিলাম। এরপরের পরিবেশনায় নয়ন অালমগীর নামে একজন অধ্যাপক একটা পাণ্ডুলিপি করে দিলেন। সেখানে চর্যাপদ থেকে শুরু করে সমসাময়িক কবিতা ছিলো। সর্বশেষ মাদারীপুরে ২০০৬ সালে ‘অনুরণন’ নামে একটি সংগঠন করি। পরবর্তীতে এর নাম পরিবর্তন করে ‘উদ্ভাস’ নামে আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সদস্যপদ লাভ করে।

ব্রেকিংনিউজ: তৃণমূল থেকে কেন্দ্রে আসার গল্পটা-
কুমার লাভলু: ঢাকায় মূলত আহকাম উল্লাহ, মাসকুর এ সাত্তার কল্লোল, মাহিদুল ইসলাম, মাহমুদা আখতার আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছেন। তাদের বদৌলতে বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে আবৃত্তি করার সুযোগ হয়েছে। ঢাকার স্বরচিত্র ও উদীচীর বিভিন্ন পরিবেশনায় অংশ নিয়েছি। এছাড়া দেশের বেশ কয়েকটি জেলায় আবৃত্তি পরিবেশনের জন্য ডাক পেয়েছি।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাথে সম্পর্ক কীভাবে?
কুমার লাভলু: সোহেল আনোয়ার নামে চট্টগ্রামের বোধন আবৃত্তি সংগঠনের একজন আমাকে আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাথে যোগাযোগ করতে বললেন। তিনি মাসকুর এ সাত্তার কল্লোলের সাথে যোগাযোগ করতে বললেন। তার সাথে যোগাযোগ করে ‘অনুরণন’ নামে একটি সংগঠন করলাম। পরে তার নাম পরিবর্তন করে ‘উদ্ভাস’ নামে কাজ করে যাচ্ছি। আমি ওই সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। সাংগঠনিক কারণেই আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সঙ্গে একটি মধুর সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তি নিয়ে কেমন স্বপ্ন দেখেন?
কুমার লাভলু: আমি একজন পেশামুক্ত মানুষ। যে কবিতা ভালোবাসে আবৃত্তি ছাড়া তার কোনো পেশা নেই। তাই আমি বিধি এবং বিধানমুক্ত মানুষও বটে। আমি তৃণমূলে কাজটা বেশি করি। আমি কবিতা ও আবৃত্তি অন্তঃপ্রাণ মানুষ। আমি আবৃ্ত্তি করে যেতে চাই। আবৃত্তি করতে করতে যেন মৃত্যুও হয়।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তিশিল্পী হিসেবে পুরস্কার বা সম্মাননা-
কুমার লাভলু: বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর পক্ষ থেকে মাদারীপুর জেলায় আবৃত্তিতে বিশেষ অবদান রাখায় ২০১৪ সালে সম্মাননা দেয়া হয়।

ব্রেকিংনিউজ: আবৃত্তিশিল্প বিকাশে করণীয় কী?
কুমার লাভলু: আবৃত্তিশিল্প বিকাশ হচ্ছে এবং একসময় পূর্ণতাও পাবে। কোনো কোনো জায়গায় শিল্পের অন্যান্য মাধ্যমের সমতুল্য। তবে শুধু কণ্ঠ দিয়ে কাজতো, এখানে আঙ্গিকের সুযোগ কম। আবৃত্তি শুধু বিনোদন নয়। শুধু জীবন ধারণের জন্য নয়। আবৃত্তি একটি সামাজিক দায়বদ্ধতা। আবৃত্তি মানুষকে মানুষ হতে শেখায়। তবে আবৃত্তিতে আরও পৃষ্ঠপোষকতা দরকার।

ব্রেকিংনিউজ: ব্রেকিংনিউজের পক্ষ থেকে আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।
কুমার লাভলু: ব্রেকিংনিউজের জন্য অনেক অনেক শুভকামনা।

ব্রেকিংনিউজ/এসইউএম



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং