Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

সোমবার ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

গুগলের যান্ত্রিক অনুবাদে বাংলা শব্দযোগ চলবেই

গুগলের যান্ত্রিক অনুবাদে  বাংলা শব্দযোগ চলবেই
অঞ্জন চন্দ্র দেব ০৩ এপ্রিল ২০১৫, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন Print

প্রযুক্তিতে এই বিশ্বে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। আর এই ইন্টারনেট ব্যবহার করে অথচ গুগলের সার্চ ইঞ্চিন ব্যবহার করে না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কষ্টসাধ্য ব্যাপার!

আন্তর্জাতিক ভাষা ইংরেজির পাশাপাশি অন্য ভাষা ব্যাপক আকারে সার্চ হয় গুগলে। অধিক মাত্রায় বাংলা ভাষাও গুগলে সার্চ হয়। সঠিক ও শুদ্ধ বাংলা এখনো গুগলে কম। গুগলে বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধি করতে কাজ করছে গুগলের ভাষাভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুগল ডেভলপার্স গ্রুপ (জিডিজি) বাংলা।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে গুগল ডেভলপার্স গ্রুপ (জিডিজি) বাংলা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল মিলে বাংলা ভাষার জন্য নতুন রেকর্ড করলো। এই দিন দেশের ৮১টি স্থানে ৪ হাজারেরও বেশি স্বেচ্ছাসেবী গুগল অনুবাদে শব্দ, শব্দাংশ, বাক্য বা বাক্যাংশ যোগ করেছে। লক্ষমাত্রা ৪ লক্ষ থাকলেও বিশ্বের সব দেশ থেকে বাংলা ভাষাভাষী মানুষ এই কর্মকারণ্ডে অংশগ্রহণ করায় এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লক্ষ।

জিডিজি বাংলার ভাষাভিত্তিক স্বেচ্চাসেবী কাজের বিভিন্ন দিক যেমন, সফলতা, শুরুর গল্প, আগামী পরিকল্পনা এই সব বিষয় নিয়ে সংগঠনটির যোগাযোগ সমন্বয়ক রাহিতুল ইসলাম কথা বলবেন ব্রেকিংনিউজের প্রতিবেদকের সাথে কথা বলেছেন একান্ত সাক্ষাৎকারে-

ব্রেকিংনিউজ: সংগঠনটির কার্যক্রম কবে থেকে শুরু?

রাহিতুল ইসলাম: সংগঠনটির কার্যক্রম শুরু হয় চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে।

ব্রেকিংনিউজ: স্বাধীনতা দিবসে বাংলার ভাষার জন্য আরেকটি স্বাধীনতা ছিল, এই সর্ম্পকে কিছু বলুন।

রাহিতুল ইসলাম: প্রতিবছরই স্বাধীনতা দিবস পালন করি কিন্তু এবার এক অন্য রকম স্বাধীনতা দিবস পালন করলাম। অন্য রকম বলতে মায়ের ভাষায় জন্য একটি বড় অর্জন করতে পেরে তাই। আমরা আরেক বার জেগে উঠেছিলাম মাতৃভাষার জন্য।

ব্রেকিংনিউজ: জিডিজি বাংলার শুরুর পরিকল্পনা কী ছিল?

রাহিতুল ইসলাম: পরিকল্পনা তো একটাই ছিল, ইন্টারনেট ব্যবহার করে গুগল অনুবাদে বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধ করা। তবে শুরুর দিকে এসো ডটকমের প্রধান নিবাহী দিদারুল আলম ও হাইফাই পাবলিকের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকতা সাফকাত আলম মিলে আমরা ক’জন ঢাকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে ঘুরে সচেতনতামূলক প্রচারণায় নেমে ছিলাম। অল্প অল্প প্রচারণায় আমাদের কার্যক্রম শুরু।

ব্রেকিংনিউজ: এই কাজে অনুপ্রাণিত হলেন কীভাবে?

রাহিতুল ইসলাম: প্রত্যেকটা ভালো কাজের পিছনে ভালো মানুষদের অনুপ্রেরণা সব সময়ই থাকে। এই কাজের পিছনেও এমন দু’জনকে পেয়েছিলাম যাদের ভাবনাগুলোই আমাদের জিডিজি বাংলা। উনারা হলেন পল্লব মোহাইমেন ও মুনির হাসান ভাই। উনারা ছিলেন এবং আছেন বলেই আমরা মাঠে নামার সাহস পেয়েছি।

ব্রেকিংনিউজ: আপনাদের সংগঠনটি এই পর্যন্ত গুগল অনুবাদে কত শব্দ যোগ করেছে?

রাহিতুল ইসলাম: গুগল অনুবাদে আমরা ১৭ লক্ষের বেশি শব্দ, শব্দাংশ, বাক্য বা বাক্যাংশ যোগ করেছি। তবে সংগঠনই শুধু এক কাজ করেনি। বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব দেশ থেকে বাংলা ভাষাভাষী মানুষ এই অর্জনে অংশগ্রহণ করেছে।

ব্রেকিংনিউজ: গুগল অনুবাদে অনেক বাংলা শব্দ যোগ হয়েছে, এখন কি শুদ্ধ অনুবাদ পাওয়া সম্ভব?

রাহিতুল ইসলাম: গুগল অনুবাদে শব্দ যোগ করা হয়েছে। তারপর গুগল টিম এবং জিডিডি বাংলা মিলে শব্দ শুদ্ধিতে নামবে। আর এই কাজে নির্বাচিত দশটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করবেন। প্রচুর শব্দ যোগ হয়েছে সেখানে অনেক ভুলভ্রান্তি রয়েছে, এই গুলোর সম্পাদনা শেষ হলেই সঠিক অনুবাদ পাওয়া যাবে।

ব্রেকিংনিউজ: ভবিষ্যতে জিডিজি বাংলাকে কোথায় দেখতে চান?

রাহিতুল ইসলাম: অবশ্যই বলবো ভালো অবস্থানে দেখতে চাই। তবে এটি একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যার ফলে সবাই একত্রে থেকে দেশের জন্য যে কোন ধরনের বড় অর্জন করা সম্ভব। বর্তমানে আমাদের সাড়ে ৪ হাজারেরও বেশি স্বেচ্ছাসেবী রয়েছে। তারা এখানে নিজে থেকেই কাজ করবেন।

ব্রেকিংনিউজ: সর্বোচ্চ গুগল অনুবাদকারী কী পাবেন?

রাহিতুল ইসলাম: যেহেতু এটি একটি স্বেচ্ছামূলক কাজ। এখান থেকে কোন কিছুর আশা না করাই ঠিক। তবে সর্বোচ্চ গুগল অনুবাদকারীর কাছ থেকে দেশ অনেক কিছু পাবে, তার শব্দ যোগে দেশের মানুষ উপকৃত হবে। তারপরও তার জন্য রয়েছে ৩ দিনের সিঙ্গাপুর গুগল অফিস ভ্রমণের সুযোগ।

ব্রেকিংনিউজ: স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কারা আপনাদের সহযোগিতা করেছেন?

রাহিতুল ইসলাম: দেশের সকল মানুষ এই কাজে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেছে। তাদের মধ্যে শিক্ষার্থী এবং তরুণই বেশি। এমনকি গৃহিণীরাও ঘরে বসে এ কাজে অংশ নিয়েছেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকেও বাংলা ভাষায় মানুষ এই কাজে অংশগ্রহণ করেছেন।

ব্রেকিংনিউজ: গুগল অনুবাদে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধ হওয়ার ফলে ইংরেজি ভাষা চর্চার মাধ্যম কি বদলে যাবে?

রাহিতুল ইসলাম: গুগল অনুবাদে শব্দ যোগের ফলে অনেক কিছুতে দেশ উপকৃত হবে। প্রতি বছর হাজার হাজার ডলার ইনকাম হচ্ছে আউটসোসিং এর মাধ্যমে, এই শব্দ যোগে বিশ্বের ৯০টি ভাষার অনুবাদ দেখা যাবে। উইকিপিডিয়াই অনুবাদ করা যাবে, এর মাধ্যমে, শিক্ষা,ব্যবসা, আর্ন্তজাতিক ভাবনা, ডিজিটাইজেশন সব কিছুতেই এর প্রভাব পড়বে।

ব্রেকিংনিউজ: প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়ে কি জিডিজি বাংলার প্রতিনিধি থাকবে?

রাহিতুল ইসলাম: প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়েই জিডিজি বাংলার একজন করে প্রতিনিধি থাকবেন। তারা নিজ ক্যাম্পাসেই কমিউনিটি গঠন করে অনুবাদের কাজ করবেন।

ব্রেকিংনিউজ: গুগল অনুবাদে শব্দযোগের কাজ কি চলতেই থাকবে?

রাহিতুল ইসলাম: একবার যখন এই কাজে নেমেছি তখন এর কার্যক্রম চলতেই থাকবে। গুগল অনুবাদে বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধ করাই আমাদের লক্ষ্য।

ব্রেকিংনিউজ: সময় দেয়ার জন্য ব্রেকিংনিউজ পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

রাহিতুল ইসলাম: ব্রেকিংনিউজকেও ধন্যবাদ। আশা করি, ব্রেকিংনিউজ সব সময় আমাদের পাশে থাকবে।

ব্রেকিংনিউজ/এসিডিটি/এমআর



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং