Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

‘সিনেমা একটি দীর্ঘজীবন চর্চা বলে মনে করি’

‘সিনেমা একটি দীর্ঘজীবন চর্চা বলে মনে করি’
মাহীতাজ খান ২২ মার্চ ২০১৫, ১২:০১ অপরাহ্ন Print

সমকালীন সময়ের ধীরে চলমান নির্মাতা সেতু আরিফ। বেশ খানিকটা সময় ধরে কাজ করেছেন টেলিভিশন ফিকশন নির্মাণে। সিনেমা নির্মাণের পথে দীর্ঘ সময় ধরে চলছে তার প্রস্তুতি পর্ব। নির্মাতা হিসেবে সিনেমা ভাবনার নানা প্রসঙ্গ নিয়ে বেকিংনিউজের সঙ্গে হলো তার কথোপোকথন-

ব্রেকিংনিউজ: নির্মাতা সেতু আরিফ এর শুরুর গল্পটা কি রকম?
সেতু আরিফ: সে তো অনেক কথা। অল্প করে বলি। ২০০৬ সালে আর্মি অফিসার ক্যাডেটে যোগদান না করে পালিয়ে নাট্যকলায় পরীক্ষা দেয়া, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া, ৪টা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭ বার ভর্তি হওয়া, কবিতা লেখা, থিয়েটার করা, অখ্যাত ৬ পত্রিকায় মার্কেটিং-এ ৭ চাকরি, তিনটা টেলিভিশন চ্যানেলে চাকরি, বিভিন্ন নির্মাতার সাথে সহকারী হিসেবে কাজ করা, শর্টফিল্ম নির্মাণ করতে করতে একসময় ২০১১ সালে নিজে ফিকশন নির্মাণ যাত্রা। এইসব আর কি।

ব্রেকিংনিউজ: টেলিভিশন ফিকশন দিয়ে তো আপনার নির্মাতা জীবন শুরু?
সেতু আরিফ: উপায় নেই। এ দেশে সিনেমা ভাবনার শুরুতেই হাতে শেকল পড়ে। দেখুন আমাদের শুরুটা হয় এই বাজে ভাবেই। অগ্রজগণও টেলিভিশনে সিনেমা চর্চা করতে গিয়ে সিনেমা ভাবনার বারোটা বাজিয়েছেন। আমরাও সেই পথে হাঁটছি।

ব্রেকিংনিউজ: আপনি টেলিভিশন ফিকশন চর্চাকে ঠিক কীভাবে দেখছেন?
সেতু আরিফ: ভালোভাবে দেখছি। কিন্তু ভালোভাবে হচ্ছেটা কোথায়? টেলিভিশন ফিকশন আর সিনেমা দুটো আলাদা মাধ্যম। কিন্তু এই ভাবনার জায়গায় আমাদের প্রথম ভুলটা হয়। তারপর সত্যি কথা হলো, টেলিভিশন চ্যানেল টিকে থাকতে যা-তা করছে। নির্মাতা হওয়ার জন্য বা কাজের জন্য অধিকাংশ নির্মাতা অসুস্থ প্রতিযোগিতা করছে। শিল্পীগণ কাজ থেকে টাকার দিকে বেশি মরিয়া হচ্ছে। মাঝখানে এজেন্সি নামক দালাল শ্রেণি টেলিভিশন ফিকশনকে ন্যাংটা করে ইচ্ছেমত রঙ মাখাচ্ছে। অখাদ্য-কুখাদ্যর সংখ্যাই বেশি হচ্ছে।

ব্রেকিংনিউজ: আপনি কী ভাবছেন এই পরিস্থিতিতে?
সেতু আরিফ: টেলিভিশন ফিকশনে আমার কোনো ভবিষ্যৎ নেই। যেভাবে চলছে চলুক। আমি আমার কাজটি করে যেতে চাই। টেলিভিশন আমার আলটিমেট ডেসটিনেশন নয়। সিনেমা করবো। কারণ আমি গল্প বলতে চাই।

ব্রেকিংনিউজ: কোন ধরনের সিনেমা করবেন? আর্টফিল্ম নাকি বাণিজ্যিক ফিল্ম?
সেতু আরিফ: আর্টফিল্ম আর বাণিজ্যিক ফিল্ম আলাদা কিসের? আর্টের সর্বোচ্চ ফর্মই তো সিনেমা। আর সিনেমায় বাণিজ্য না হলে প্রযোজক আমাকে সিনেমা করতে টাকা দেবে কেন?

ব্রেকিংনিউজ: তাহলে আপনি এই বিভক্তিকরণ মানেন না?
সেতু আরিফ: অবশ্যই না। দেখুন এই নানা ভাগ করেছেন যারা তারা আসলে দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে এইসব চর্চা করেছেন। সোজা হিসেব, সিনেমায় গল্প থাকতে হবে, উপস্থাপনে নির্মাতার নিজস্ব ভঙ্গি থাকতে হবে। টাকা তুলতে হবে।

ব্রেকিংনিউজ: সিনেমাতেও নানারকম বাধা আছে। যেমন টেলিভিশন ফিকশন নির্মাতাদের মিডিয়ার নির্মাতা বলে দেখা হয়। আপনি কাজ করবেন কীভাবে?
সেতু আরিফ: এইসব নিয়ে আমার মাথাব্যথা নেই। আমি কোনো কিছু বদলে দেবার প্রত্যয় নিয়ে লাফালাফি করবো না। আমি আমার মত কাজটা করে যেতে চাই। আমার কাজ আামর জায়গা করে দেবে।

ব্রেকিংনিউজ: আপনার সিনেমার গল্প কি ধরনের হবে?
সেতু আরিফ: সিনেমা নির্মাণ হলেই দেখতে পাবেন। তবে এইটুকু বলবো- কপি গল্প করবো না। বাজারি কাটতি বুঝে তাল মেলাবো না। আমার সিনেমায় আমার নিজস্ব নির্মাণের সাইন থাকবে।

ব্রেকিংনিউজ: আপনি তাহলে আর টেলিভিশন ফিকশন করছেন না এখন?
সেতু আরিফ: ঠিক জানি না। আগস্ট পর্যন্ত আর দু’একটা কাজ করতেও পারি, নাও করতে পারি।

ব্রেকিংনিউজ: আপনার সিনেমা নির্মাণের কোন পর্যায়ে আছেন এখন?
সেতু আরিফ: গল্প ঠিক হয়েছে। এখন আমার টিমের সদস্যদের নিয়ে স্ক্রিপ্ট ডেভলপমেন্ট চলছে। একই সঙ্গে সিনেমা মার্কেট নিয়ে গবেষণা করছি। মে থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রি-প্রোডাকশন চলবে।

ব্রেকিংনিউজ: সিনেমার নাম, আর্টিস্ট কারা হচ্ছে এবং পরবর্তী পরিকল্পনা কি?
সেতু আরিফ: সিনেমার নাম কিংবা আর্টিস্ট এখন বলবো না। তবে শুটিং-এ যাবার আগে প্রেস ব্রিফিং হবে। অক্টোবরের মাঝামাঝি-ডিসেম্বরের মধ্যে সিনেমার শুটিং শেষ হবে।

ব্রেকিংনিউজ: নির্মাতা হিসেবে বাংলাদেশের সিনেমা নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?
সেতু আরিফ: কোনো পরিকল্পনা নেই। দেখুন, সিনেমা একটি দীর্ঘজীবন চর্চা বলে আমি মনে করি। এবং আমি এটাই বিশ্বাস করি।

ব্রেকিংনিউজ: সময় দেয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।
সেতু আরিফ: আপনাকেও।

ব্রেকিংনিউজ/এসইউএম



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং