Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

সোমবার ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

বিশ্ববাজারে দেশীয় শিল্পের প্রচারে ‘এসো ডটকম’

বিশ্ববাজারে দেশীয় শিল্পের প্রচারে ‘এসো ডটকম’
প্রতিবেদক ২৪ জানুয়ারী ২০১৫, ৭:০২ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: অনলাইনে কেনাকাটা এখন আর শখের পর্যায়ে নেই। নগরে ব্যস্ততা যত বাড়ছে প্রয়োজন মেটাতে ততই জনপ্রিয় হচ্ছে ই-কমার্স। দেশের বাজারে প্রায় হাজারো ই-কমার্স সাইটে প্রতিদিন কেনাকাটা বাড়ছে। অনেকগুলো আবার টিকে থাকতে লড়াই করে চলছে।

তবে এগুলোর মধ্যে ব্যতিক্রম ‘এসো ডটকম’। অনেক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের ভিড়ে এটিকে সেরা অবস্থানে নিয়ে যেতে চান এসো ডটকমের প্রধান নির্বাহী দিদারুল আলম।

একজন উদ্যেক্তা হিসেবে তার পথচলার আরম্ভ থেকে শুরু করে সফলতা, ব্যর্থতা, পরিকল্পনা প্রভৃতি উঠে এসেছে ব্রেকিংনিউজের প্রতিবেদক অঞ্জন চন্দ্র দেবের এই লেখাটিতে-

যেভাবে শুরু:

দিদারুল আলমের জন্ম কিশোরগঞ্জে। উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করে নিজের এলাকায়। বিবিএ শেষ করেন আমেরিকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটি বাংলাদেশে থেকে। পড়াশোনা চলাকালীন অবস্থায় তিনি স্বপ্ন দেখতে থাকেন কিছু একটা করার। পড়াশোনা শেষ করে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য চাকরি করেন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে। চাকরি করা অবস্থায় নিজের প্রতিষ্ঠান নিয়ে স্বপ্ন দেখা। ২০১৩ সালের প্রথম দিকে যাত্রা শুরু করেন এসো ডটকমের।

কার্যক্রম:
বর্তমানে সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও ই-কমার্স এবং ই-মার্কেটিংয়ের ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। তাই সফলতার সমূহ সম্ভাবনা খুঁজে নিলেন ই-কমার্সে দিদারুল। ‘যা কিছু প্রয়োজন এসো ডটকম’ স্লোগানকে সামনে রেখে ৩ জন নিয়ে যাত্রা শুরু করেন এসো ডটকমের।

দিদারুল জানান, গ্রাহক যাতে প্রতারিত না হয় সেজন্য শুরু থেকেই কোয়ালিটি মেনে চলেছি। নিজেদের ফটোগ্রাফির মাধ্যমে পণ্যের প্রচার করছি।

গ্রাহকরা এ সাইট থেকে পছন্দের পণ্য অনলাইনে অর্ডার করার পর কাস্টমার সার্ভিস থেকে কনফার্ম করে পণ্য ডেলিভারির মাধ্যমে একটি পূর্ণাঙ্গ সেবা দেয়া হয় বলে জানান তিনি। মূলত নিজেদের সুনাম ধরে রাখতেই এ উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

সমস্যা:
ই-কমার্স ব্যবসা করতে গিয়ে কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন বেশি হচ্ছেন জানতে চাইলে দিদারুল আলম বলেন, উচ্চগতির ইন্টারনেটের সমস্যার সম্মুখীন বেশি হচ্ছি। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবার মাধ্যমে ই-কমার্সকে জনপ্রিয় করে তোলা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি। ই-কর্মাস যেহেতু ইন্টারনেট নির্ভর ব্যবসা তাই সারাদেশে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ থাকা জরুরি। যাতে করে গ্রাহকরা অনায়াসেই তার পছন্দসই পণ্যের অর্ডার দিতে পারেন।

অনুপ্রেরণা:
কোথায় অনুপ্রেরণা পেলেন জানতে চাইলে দিদারুল বলেন, ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করার জন্য দুই দিক থেকে অনুপ্রেরণা পাই। প্রথমটা হলো আমাদের প্রতিবেশি দেশ ভারতে ব্যবসা সফল হয়ে উঠেছে ই-কর্মাস। বিশ্বের অন্যান্য দেশেও ই-কমার্স ছড়িয়ে পড়ছে। তাই শুরু থেকেই আশা রেখেছিলাম আমাদের দেশও ই-কমার্সে এগিয়ে যাবে, যেখান থেকেই প্রথম অনুপ্রেরণা। দ্বিতীয়টা পাই মেঘনা অব গ্রুপ ইন্ডাস্ট্রির নির্বাহী পরিচালক (মার্কেটিং) ও বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আসিফ ইকবাল, বাংলালিংকের চিফ কমার্শিয়াল অফিসার শিহাব আহমাদসহ আরো অন্যান্যদের কাছ থেকে।

পণ্য:
দিদারুল জানান, সব ধরনের পণ্যই রয়েছে এসো ডটকমে। লাইফস্টাইল, ইলেকট্রনিক্স ও আমাদের নিজেদের তৈরি পণ্য গ্রহকদের কেনার আগ্রহ বেশি। এসো ডটকমে গৃহস্থালী পণ্য, স্বাস্থ্য সেবা, ইলেকট্রনিক্স, সিরামিকস, গিফট আইটেম, প্রসাধনী পণ্য, কসমেটিকস ও পোশাক-আশাক নিয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ ই-কমার্স সাইট।ঢাকার ভেতরে পণ্য ডেলিভারী দেয়া হয় ২৪ ঘন্টায়, ঢাকার বাহিরে ৪৮ ঘন্টায়।

সুযোগ-সুবিধা:
‘এসো ডটকম’ থেকে কেনার সুযোগ-সুবিধার কথা জানতে চাইলে দিদারুল বলেন, আমাদের কাছে পণ্য থাকলেই আমরা সেটা সাইটে রাখি, পণ্য জমা না থাকলে আমরা সাইটে রাখি না। যাতে করে গ্রহক হয়রানির শিকার না হয়। মূল্য গ্রাহকের নাগালের মধ্যেই রাখা হয়। আমরা মানসম্পন্ন পণ্য বিক্রি করে থাকি। ৫ শ' টাকার উপরে পণ্য কিনলে ডেলিভারী চার্জ ফ্রি, তার নিচে হলে ৪০ টাকা ডেলিভারী চার্জ দিতে হবে। আর সেটা ঢাকা ও ঢাকার বাহিরে সমান।

মূল্য পরিশোধ:
এসো ডটকমে ক্রেতাদের হাতে পণ্য পৌঁছানোর পর মূল্য পরিশোধ করার সুযোগ রয়েছে। পাশাপাশি কেউ ইচ্ছা করলে বিকাশের মাধ্যমেও পরিশোধ করতে পারে। আরো রয়েছে পেইজা, অনলাইন পেমেন্ট সিষ্টেম প্রভৃতি।

ভবিষাৎ পরিকল্পনা:
ভবিষাৎ পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে দিদারুল জানান, বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের যারা রয়েছে তাদের কাছে আমাদের সেবা পৌঁছানো এখন বর্তমান উদ্দেশ্য। বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের পণ্য প্রচার করাই আগামী দিনের লক্ষ্য। এসো ডটকমে এসে যাতে সব কিছুই কিনতে পারে ক্রেতারা সেটা নিশ্চিত করাও আরেকটি লক্ষ্য।

বিশ্বাস ও নির্ভরযোগ্যতা:
বিশ্বাস ও নির্ভরযোগ্যতার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ২ বছরে ৩৫ হাজার গ্রাহকের আস্থা তৈরি করতে পেরেছি আমরা। এসো ডটকমের মূল লক্ষ্য হলো মানুষের বিশ্বাস অর্জন করা। একজন ক্রেতা পণ্যটি বাজারে গিয়ে সময় নষ্ট করে যে দামে কিনবে, সেটা ঘরে বসেই যেন অনেক সহজে বাজার দরে কিনতে পারে সেই বিশ্বাস ও নির্ভরযোগ্যতা অর্জন করাই আমাদের উদ্দেশ্য।

ব্যবসার প্রসার:
দিদারুল বলেন, ব্যবসার প্রসারের জন্য এসো ডটকম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বেশি জোড় দিচ্ছে। বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে না এমন মানুষ খুবই কম। এর পাশাপাশি বিলবোর্ড ও টেলিভিশন এডের দিকে যাচ্ছি।

পরামর্শ:
নতুন যারা ই-কমার্স নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছে বা শুরু করছে, তাদের উদ্দেশে দিদারুল বলেন, যেকোনো কিছুর সফলতার ক্ষেত্রে মূল বিষয় হলো নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য, নীতি ও সুষ্ঠু পরিকল্পনা। ই-কমার্স সাইটটিকে ইউজার ফ্রেন্ডলি করা, যাতে করে কাষ্টমার কিনতে এসে রিরক্ত বোধ না করে। শুরু করার আগে অবশ্যই মার্কেট রিসার্চ করা উচিত।

'এসো ডটকম' সাইটটি সর্ম্পকে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: http://esho.com/ ও সব ধরনের আপডেট পেতে যুক্ত থাকুন: https://www.facebook.com/eshocom?fref=ts

ব্রেকিংনিউজ/এসিডি/এফই



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং