Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » সাক্ষাৎকার 

বাংলা গানকে আকর্ষণীয় করে তুলে ধরতে চেষ্টা করছি

বাংলা গানকে আকর্ষণীয় করে তুলে ধরতে চেষ্টা করছি
রুবাইয়েত জাহান
জনি খান ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪, ১২:২৬ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: লন্ডনে প্রবাস জীবন কাটালেও মনে প্রাণে ষোল আনাই বাঙ্গালি রুবাইয়েত জাহান। ইউরোপের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলগুলো ও লাইভ কনর্সাটগুলোতে তার মিষ্টি কন্ঠের জাদুতে বশ করেছেন অগণিত শ্রোতার হৃদয়। লন্ডনে প্রবাসী শিল্পী হিসেবে এরই মধ্যে তিনি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। সম্প্রতি নিজের গান ও গানের ক্যারিয়্যার নিয়ে ব্রেকিংনিউজের সঙ্গে বললেল নানান কথা।

গানের পথে চলার শুরুর গল্পটা কেমন?
রুবাইয়েত: গানের সঙ্গে বন্ধুত্ব সেই ছোটবেলা থেকেই। বাবা সবসময়ই আমাকে হারমোনিয়ামের পাশে বসিয়ে গান করতেন। বাবা সরকারী চাকরিতে থাকার সুবাদে আমার শৈশব বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় কেটেছে। কুষ্টিয়াতে থাকাকালীন সময়ে কুষ্টিয়া শিশু একাডেমীতে গান শেখা হতো। পরবর্তীতে বাবা ঢাকায় বদলি হলে বুলবুল ললিতকলা একাডেমী এবং কনক চাঁপার কাছে বেশ কিছুদিন গানের তালিম নিয়েছি।এছাড়াও চট্রগ্রামে ওস্তাদ মিহির লালের কাছ থেকে ধ্রুপদী সংগীতে তালিম নিই। সেই সময় চট্টগ্রাম রেডিও এবং টিভিতেও নিয়মিত গান গাওয়া শুরু হলো আমার।

শুনেছি ছোটকালে নাচ করতেন?
রুবাইয়েত: কুষ্টিয়াতে থাকাকালীন কুষ্টিয়া শিশু একাডেমীতে নাচের তালিম নেয়া হয়েছে। নাচতে ভালো লাগলেও পরবর্তীতে গানেই সবচেয়ে বেশি মনোযোগী হয়ে উঠেছিলাম।

বাবার কাজের সুবাদে আপনি তো বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় থেকেছেন। সেসব জেলার আঞ্চলিক গানগুলো নিয়ে কখনো কাজ করেছেন?

রুবাইয়েত: আঞ্চলিক গান গাইতে পছন্দ করি কিন্তু এখনও কোনো প্রজেক্ট হাতে নেয়া হয়নি। যদি সময় সুযোগ হয় তাহলে বাংলাদেশের আঞ্চলিক গানগুলো নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করতে গিয়ে গানের ‘সেকেন্ড ইনিংস’ শুরু হলো কিভাবে? সেই গল্পটা শুনতে চাইছি।
রুবাইয়েত: সত্যি বলতে কী, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলা গানের চর্চার ব্যাপারে আমার আগে জানা ছিল না। যখন জানতে পারলাম এখনকার শ্রোতারা শুধু বাংলা গান শোনেনই না, বরং এখানে অনেক বাঙ্গালি শিল্পী আছেন যারা নিয়মিত বাংলা গানের চর্চা করেন। এটি জানার পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আমার গানের ‘সেকেন্ড ইনিংস’ শুরু ।

কোন ধরনের গান করতে জাহান বেশি স্বচ্ছন্দবোধ করেন?

রুবাইয়েত: আমি বিভিন্ন উৎসবে গেয়ে গাইতে থাকি। সে কারণে আমাকে বাংলা গানের পাশাপাশি হিন্দি, উর্দু, পাঞ্জাবী, ইংরেজী ভাষার বিভিন্ন ধরনের গান গাইতে হয়ে। তবে আধুনিক, পপসহ সব রকমের গান গাইতেই আমি স্বাচ্ছন্দবোধ করি।

শুনেছি ‘ব্রিটাশিয়া সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন। এছাড়াও বেশ কিছু প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া হয়েছিল। সেই কথাগুলোও বলুন...
রুবাইয়েত: ব্রিটাশিয়া সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় আমি একমাত্র বাঙ্গালি প্রতিযোগী যে বলিউড ক্যাটাগরিতে ফাইনালিস্ট ছিলাম। এর আগে ছোটবেলায় বাংলাদেশের কুষ্টিয়াতে থাকাকালীন গানে ও নাচে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় আমি প্রথম স্থান লাভ করেছিলাম।

ব্রিটেনের বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে উপস্থাপনাও করা হয়েছে আপনার। গান ও উপস্থাপনা- এ দু'টির মধ্যে সমন্বয়সাধন করতেন কিভাবে?
রুবাইয়েত: হ্যাঁ... ব্রিটেনের বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর মধ্যে ‘বাংলা টিভি’, ‘এটিএন বাংলা’ ও ‘চ্যানেল এস’-এর আয়োজিত গানের অনুষ্ঠানগুলোতে উপস্থাপনা করা হয়েছে। গানটা তো আমার কাছে প্রধান আর অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করাটা ছিল শখ।

এখন উপস্থাপনার কি হালচাল?
রুবাইয়েত: এখন বর্তমানে গান নিয়ে ব্যস্ত। তাই উপস্থাপনা করা হচ্ছে না।

ব্রিটেনের বাংলা গানের প্রসার হিন্দি কিংবা উর্দু গানের তুলনায় কেমন অবস্থানে রয়েছে বলে আপনার মনে হয়?
রুবাইয়েত: ব্রিটেনে অন্যান্য ভাষার পাশাপাশি বাংলা গানেরও সমাদর রয়েছে। আমি নিজে চেষ্টা করছি বাংলা গানকে আকর্ষণীয় করে তুলে ধরতে। আমি মনে করি, আর্ন্তজাতিকভাবে বাংলাদেশ থেকেও বাংলা গানকে আরও তুলে ধরার উদ্যোগ নেয়া উচিত।

বাংলা গানের আরও প্রসারের জন্য আপনি কতটুকু ভূমিকা রাখতে পারছেন বলে মনে করেন?
রুবাইয়েত: বলতে গেলে আমি একমাত্র শিল্পী যে এখান (ইউকে) থেকে বাংলা গান নিয়মিত রিলিজ করে যাচ্ছি। অন্য ভাষাভাষির মানুষরাও আমার বাংলা গান শুনে প্রশংসা করছে এটাই বড় পাওনা। অনেকেই আমাদের বাংলা ভাষার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করছে।


‘পর ধন লোভে মত্ত করিনু ভ্রমণ, ভিক্ষাবৃত্তি কুক্ষণে আচরি’ কথাগুলো কি আপনার ক্ষেত্রে বলা যায়?
রুবাইয়েত: মোটেই না। আমার ভিত্তি ও শিকড় বাংলা গানের। আমি ক্লাসিক্যাল গানের উপর তালিম নিয়েছি। ব্রিটেনে এসেও বাংলা গানের পথ থেকে তো আমি দূরে সরে যাইনি। একজন শিল্পী যে কোনো ভাষায় গান গাইতে পারেন। এটা নতুন কোনো ঘটনা নয়। আমিই প্রথম বাঙ্গালি যার বাংলা গান ‘মুভিবক্স’ প্রযোজনা সংস্থা থেকে বের হলো। রাজা কাসাফের ফিউচারিংয়ে ও আমার কন্ঠে ‘সাথে রবে তুমি’ গানটি ‘মুভিবক্স’ প্রযোজিত প্রথম বাংলা গান। সেক্ষেত্রে আমি বাংলা পথ থেকে হারিয়েই-বা গেলাম কবে আর প্রত্যাবর্তনই-বা কবে হলো!

আপনার মিউজিক ভিডিও মডেল হয়েছেন নিজেই, সেক্ষেত্রে মাথায় সিনেমায় অভিনয়ের পোকা নেই তো?
রুবাইয়েত: শখ করেই নিজের গানের মডেল হয়েছি। একসময় অভিনয় করার ইচ্ছে ছিল। তবে সিনেমাতে অভিনয়ের কোনো পোকাই আপাতত মাথায় নেই।

প্রথম একক/ডুয়েট অ্যালবাম সম্পর্কে বলুন...
রুবাইয়েত: আমি প্রথমে একক গান দিয়ে যাত্রা শুরু করি। গানটা ছিল হিন্দি ‘মেরে পারদেশী বাবু’। সেটা ছিল ‘হাম তুম’ গানের প্রোডিউসারের করা। আমি যার জন্য ব্রিটাশিয়া টিভি থেকে সেরা গায়িকার মনোনয়নও পাই। পরে আমি বিখ্যাত গায়ক এবং কম্পোজার রাজা কাশিফের সাথে কাজ করা শুরু করি। যিনি আমার বাংলা এবং হিন্দি গানগুলো কম্পোজ করছেন। যিনি শঙ্কর মহাদেভান, অনুরাধা পাড়োয়াল, আলকা ইয়াগনিক, আদনান সামিসহ আরো অনেক বিখ্যাত আর্টিস্টদের সাথে কাজ করেছেন।

এ যাবত আপনার কতগুলো গান গাওয়া হয়েছে? আর কোন কোন শিল্পীর সঙ্গে গানের কাজ করা হয়েছে?

রুবাইয়েত: আমার গানের যাত্রা তো মোটে শুরু। তারপরেও এই পর্যন্ত আমার ৩টি বাংলা এবং ৮টি হিন্দি গান রিলিজ হয়েছে। আর রাজা কাশিফের সাথে ডুয়েট কিছু গান আছে। তবে এখন আরো বেশি করে বাংলা গান রিলিজ করার উদ্যোগ নিয়েছি।

মুভিবক্সের সঙ্গে সুসর্ম্পক হয়ে গেল কেমন করে? তাদের মাধ্যমে আপনার কতগুলো গান প্রকাশিত হয়েছে?

রুবাইয়েত: ‘মেরে পারদেশী বাবু’ গানটা মুভিবক্সের ভালো লাগার পরেই আমাকে তারা সাপোর্ট দেয়া শুরু করে। বিখ্যাত ভারতীয় কোম্পানিটি আমার বাংলা গান রিলিজ করার সম্মতি দেয়। এছাড়াও আগামীতে এখান থেকে আরও বাংলা গান রিলিজ করার প্রত্যাশা রয়েছে।

আপনার ডুয়েট অ্যালবাম ‘৯ মাত্রা’ নিয়ে কিছু বলুন।
রুবাইয়েত: এই অ্যালবামে বেশ কিছু ডুয়েট এবং একক গান আছে। অ্যালবামটির সব গান রাজা কাশিফের কম্পোজ করা। আশা করছি আপনাদের ভালো লাগবে। অনেক ভিন্ন ভিন্ন তালেও গাওয়ার চেষ্টা করেছি। সাড়ে ৮ মাত্রা এবং ৯ মাত্রা।

আর ডি বর্মনের কোন গানগুলো আপনার হৃদয় ছুঁয়েছে? অ্যা ট্রিবিউট টু আর ডি বর্মন ‘মনে পড়ে’ সম্পর্কে কিছু শুনতে চাইছি?

রুবাইয়েত: ‘মনে পড়ে রুবি রায়’ মনে করছি সবার ভালো লাগবে। গানটি পুরোটি বাংলায় এবং কিছু অংশ হিন্দিতে। সত্যিই অন্যরকম। রিমিক্স বলব না, বলব রিমেক।

এ সময়ের ব্যস্ততা কি নিয়ে কাটছে?
রুবাইয়েত: রেকর্ডিং-এ খুব ব্যস্ত সময় কাটছে। এছাড়াও বেশ কিছু গানের ভিডিও নির্মাণের কাজও চলছে।

ব্রেকিংনিউজ/জেকে/এফই



আপনার মন্তব্য

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং