Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » স্বাস্থ্য 

বৃক্ষমানব আবুলের দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার সফল

বৃক্ষমানব আবুলের দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার সফল
প্রতিবেদক ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, ৪:১২ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: বৃক্ষমানব আবুল বাজনদারের ডান হাতে দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে বায়োপসির রিপোর্টে তার শরীরে ক্যান্সারের জীবানু পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে। 
 
শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার হয়। বেলা সোয়া ১২টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এই অস্ত্রোপচার চলে।

এর আগে গত শনিবার আবুল বাজনদারের ডান হাতে ৫টি আঙুলেই অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল। এক ঠিক এক সপ্তাহ পর পুনঃরায় তার হাতে অস্ত্রোপচার হলো। 


জানা গেছে, গত শনিবার আবুলের ডান হাতের ৫টি আঙ্গুলে অস্ত্রোপচার হয়। এক সপ্তাহ পর শনিবার একই হাতের কবজির ওপরের দিকে এবং হাতের তালু অংশে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থাও ভালো।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান আবুল কালামের নেতৃত্বে চিকিৎসকদের একটি দল আবুল বাজনদারের দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার করেন।

অস্ত্রোপচার শেষে হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান আবুল কালাম সাংবাদিকদের বলেন, আজ আবুল বাজনদারের ডান হাতের কবজির ওপরের দিকে এবং তালুর অংশে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তাদের ধীরে ধীরে এগোতে হচ্ছে।

আবুল বাজনদারের শরীরে ১৩ থেকে ১৫টি অস্ত্রোপচার করতে হবে বলেও জানিয়েছেন ডা. আবুল কালাম।

আবুল বাজনদার গত ৩০ জানুয়ারি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি হন। ট্রি-ম্যান সিনড্রোমে ভোগা আবুল বাজনদার দারিদ্র্যের কারণে এতদিন সুচিকিৎসা পাননি।

গত শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার ডান হাতটি থেকে শিকড়ের মতো বৃদ্ধি পাওয়া অংশগুলো অস্ত্রোপচার করে বাদ দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত চিকিৎসকদের আশা, আবুল সেরে উঠবেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, আবুল বাজনদারসহ বিশ্বে এখন পর্যন্ত এ ধরনের ৪জন রোগীকে সনাক্ত করা গেছে। গণমাধ্যমে আসা ইন্দোনেশিয়ার বৃক্ষমানব গত ৩০ জানুয়ারি মারা গেছেন।

চিকিৎসকদের ধারণা, আবুল বাজনদার ‘এপিডার্মোডিসপ্লাসিয়া ভেরাসিফরমিস’ রোগে আক্রান্ত। রোগটি ‘ট্রি-ম্যান’ (বৃক্ষমানব) সিনড্রম নামে পরিচিত। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ রোগ হয়। ১০ বছর ধরে আবুল এই রোগে ভুগছেন। তার হাত ও পায়ের আঙুলগুলো গাছের শিকড়ের মতো হয়ে গেছে এবং দিনে দিনে তা বাড়ছে।

চিকিৎসক আবুল কালাম জানান, আবুলের বায়োপসি পরীক্ষায় ক্যান্সারের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। তারা অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যের চিকিৎসকদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন।

ব্রেকিংনিউজ/এসআই/এইচএস



আপনার মন্তব্য

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং