Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, অপরাহ্ন

প্রচ্ছদ » মুক্তমত 

নেপাল বিষয়ক কিছু সরল পরিপ্রেক্ষিত

নেপাল বিষয়ক কিছু সরল পরিপ্রেক্ষিত
শফিক শাহীন ১৮ অক্টোবর ২০১৫, ২:৩৬ অপরাহ্ন Print

অবোরোধে নিষ্পেষিত নেপালের মানুষেরা কি ভাবতে পারতেছে এরই নাম ইন্ডিয়া। কলোনিয়াল ভৃত্য হিসেবে আমাদের মেরুদণ্ডের সাথে নেপালেরটার একটা বেসিক পার্থক্য আছে। আমরা মোঘল, ব্রিটিশ, পাকিস্তানের সরাসরি উপনিবেশ ছিলাম। বর্তমানের প্রচ্ছন্নভাব নাহয় উহ্য থাক। নেপাল এই উপমহাদেশের একমাত্র দেশ, যারা কোনোদিন কারো কলোনি ছিলো না। গৌতম বুদ্ধ শাসিত/ প্রভাবিত চিরস্বাধীন একটা রাষ্ট্রের ঐতিহাসিক ঐতিহ্যের মেরুদণ্ড আমাদের মতো এমন বারো ভাতারি হয় নাই। কতো কঠিন সংকল্প আর কতো প্রাণের বিনিময়ে তা রক্ষিত হয়েছে, তার খবরও আমরা রাখি নাই। তাই আমরা ভাবতে পারি না, কিন্তু ওরা হয়তো পারতেছে। ওদের সাথে আমাদের পার্থক্যের ব্যাপারে জানার পরে আমরা হয়তো এইটুকু বুঝি- ওরা পারতেছে, ঐতিহাসিকভাবেই ওদের তা বুঝতে পারার কথা।

তা, ওরা বুঝিলে আমাদের আপাতত কী কী জুড়াইবে, আমাদের মনে এমন প্রশ্ন চলে আসাটাই সঙ্গত। নেপাল কি আমাদের বন্ধু ছিলো কখনো, নাকি আমরা তাদের বন্ধু ভাবতাম কখনো। ভারত কর্তৃক (বা, কেউ কেউ বলেন তাদের দ্বারা চালিত প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের দ্বারা) নেপালের রাজতন্ত্র উৎখাতের পরে, ভারত চাইতেই পারে তাদের মনের মতো করে নেপালকে সাজাতে। ভারতের এমন চাওয়াটি অন্তত আমাদের কাছে যুক্তিযুক্ত মনে হওয়া উচিত। নইলে আমাদের দেশকে স্বাধীন করার পর, ভারতের কিছু চাওয়াটা অন্যায় হইয়া যায়। শাহবাগ আন্দোলন যখন তুঙ্গে, সেই সময় স্বাধীনতার চেতনায় প্রজ্জ্বলিত কয়েকজন ছোটভাই বলতেন- আরে মিয়া, ভারতের ঋণ শোধ করতে গিয়া আমাদের গায়ের চামড়া দিয়া তাদের জুতা বানাইয়া দিলেও ঋণ শোধ হবে না। বাক্যটা ঠিক ওই সময়ের জন্য খুবই দরকারি ছিলো, আমিও তাই মনে করেছিলাম, পাশাপাশি কথাটা সরকারিও ছিলো। যেহেতু শাহবাগ আন্দোলন সরকারি, আর সেই মুহূর্ত থেকে সরকারি পদক্ষেপের লেজিটিমিসি দাবি করার আর কোনো অপশনও পাবলিকের হাতে ছিলো না। যদিও গণজাগরণ মঞ্চ নিয়া শুরুতে ইন্ডিয়ান টাইমস যা লিখেছিলো তাতে ভিষণ আপত্তি আমার; সেই বিতর্কিত লেখা নিয়া এখানে কোনো কথা নাই।

যাই হোক, কখনো যদি তোপধ্বনি করতে না পারার ২২টি বাস্তবিক কারণের মধ্যে প্রথম কারণটি যদি হয় গোলা-বারুদ না থাকা, তাহলে বাকী ২১টি কারণ শোনার প্রয়োজনীয়তা নাই হইয়া যায়। সেই অর্থে যারা নেপালের পাশে থাকতে চান, বাংলাদেশের সাথে ভারতের পারস্পরিক চাওয়া-পাওয়াকে বাদ দিলে, তারাতো একপ্রকারের অদরকারী কারণগুলি নিয়াই ডিল করতেছেন। তারা কেউ কি পরিষ্কার করতে পারেন, আসলে আমরা কীভাবে নেপালের পাশে থাকবো? নাকি কিছু মানুষ থাকতে চায়, যাদের থাকা না থাকা অনেকটা রাজনীতি করার অভ্যাসবশত বিরোধী দলে থাকার মতো। আমরা তো এইটুকু স্মরণ করতে পারি যে, আমরা তো জাতিগতভাবে কোনোকালেই নেপালের পাশে ছিলাম না। তো এখন এই থাকাটা ঠিক কেমন, এই থাকার কার্যকারিতা ঠিক কোন কোন ক্ষেত্রে তা এখনো স্পষ্ট বুঝা যাইতেছে না।

যারা এতদিন ভাবতেছিলেন, কিংবা জামাত-হেফাজতের মতো কোনো কোনো মৌলবাদী দল বুঝাইতে ছিলেন যে, ভারত হিন্দু রাষ্ট্র বলে আমাদের মুসলমানদের ওপর চড়াও হইছে, মনে হয় তাদের ভুল ভাঙ্গার মোক্ষম সময় এটি। ভারত ঐতিহাসিকভাবে একদা হিন্দুপ্রধান রাষ্ট্রই ছিলো বটে এবং এদেশও তারই ঔরসজাত। কিন্তু এখন, বিশেষ করে নেপালে তার নগ্ন হস্তক্ষেপের পরে, তাকে স্রেফ ব্রিটিশের মতো সাম্রাজ্যবাদী রাষ্ট্রই বলা যায়। ব্রিটিশের দীক্ষায় রাজনীতি করা কংগ্রেস এবং য্যদ্বারা সৃষ্ট ভারত-পাকিস্তান তো ঔপনিবেশিক সাম্রাজ্যবাদকেই ধারণ করবে, তা তো অস্বাভাবিক নয়। এখন যেখানে বিজেপিকেই হিন্দুরা সন্দেহ করেন, সেক্ষেত্রে আমরা জানি, কংগ্রেস গোড়ায় হিন্দু জাতীয়তার কথা বলে দেশ বিভাজন করলেও, কোনোভাবেই তা হিন্দুদের ধর্মীয় পার্টি না, তেমনি কংগ্রেসের পেট থেকে বেরিয়ে আসা মুসলিম লীগও আদপে মুসলমানদের পার্টি না। অতঃপর সেই ধারাবাহিকতায় থাকা আমরা রাষ্ট্রীয়ভাবে কী চাইবো? জানি, এমন জলের মতো স্বচ্ছ বিষয়কে চিন্তা-ভাবনা করতে গেলে হয়তো খামাখাই আপনার কিছু মূল্যবান সময় নষ্ট হবে।

আমাদের গায়ের চামড়া দিয়া জুতা বানাইয়া দিলেও যেমন ভারতের কাছে আমাদের ঋণ শোধ হবে না। তেমনি চিরস্বাধীন নেপাল ভাবতেই পারে, তাদের স্বাধীনতা রক্ষায় যারা পাশে থাকবেন, তাদের ঋণ গায়ের চামড়া দিয়া কম্বল বানাইয়া দিলেও শোধ হবে না। আমাদের গোলামী-স্বভাবের অসংবেদী চামড়ায় ফিল করতে না পারলেও, ওরা কিন্তু ফিল করতে পারে- স্বাধীনতা অর্জনের চাইতে রক্ষা করা কতোটা কঠিন ও কতোটা দরকারি।

ডিসক্লেইমারঃ এই লেখাতে ‘বারো ভাতারি’ বিশেষণটি কোনো পুরুষালি শব্দ হিসেবে ব্যবহৃত হয়নি। শুধুমাত্র গড় প্রচলিত নৈয়ায়িক শব্দ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/এসজে

:: মুক্তমতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন ::



আপনার মন্তব্য

মুক্তমত বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং