Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » শুধুই ঢাকা 

‘প্রবাসীদের বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে নতুন বন্ড ছাড়তে হবে’

‘প্রবাসীদের বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে নতুন বন্ড ছাড়তে হবে’
প্রতিবেদক ২১ মার্চ ২০১৬, ৭:০১ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: দেশে প্রবাসীদের বিনিয়োগের জন্য ওয়ান স্টপ সার্ভিস না থাকায় তারা বিভিন্ন ধরনের হয়রানির শিকার হয়ে থাকেন। ফলে প্রবাসীরা দেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। তাই প্রবাসীদের বিনিয়োগে আগ্রহী করতে দ্রুত বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ডের সুদের হার বাড়াতে হবে। পাশাপাশি নতুন করে বাজারে বন্ড ছাড়তে হবে।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘প্রবাসী ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক মুক্ত আলোচনায় বক্তারা এসব কথা বলেন। মুক্ত আলোচনাটির আয়োজন করে প্রবাসী বাঙ্গালি কল্যাণ সমিতি, যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাজ্য প্রবাসী সৈয়দ একামত আলী বলেন, আমরা যারা প্রবাসে আছি তারা সামগ্রিকভাবে ভাল আছি। এখন আমাদের দেশেকে উন্নয়ন করার পালা। তাই বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা এ দেশে বিনিয়োগে আগ্রহী।

সৌদি আরব প্রবাসী ডা. সমির কুমার দত্ত বলেন, প্রবাসীরা দেশে বিনিয়োগ করতে চায়। কিন্তু ওয়ানস্টপ সার্ভিস না থাকায় প্রবাসীরা দেশে বিনিয়োগ করতে আসলে তারা বিভিন্ন ধরনের হয়রানির শিকার হয়। তাই প্রবাসীদের বিনিয়োগে আগ্রহী করতে দ্রুত বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ডের সুদের হার বাড়াতে হবে। পাশাপাশি নতুন করে বাজারে বন্ড ছাড়তে হবে।

তিনি আরও বলেন, পার্শবর্তী ভারতেই প্রবাসীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের বন্ডে বিনিয়োগ করতে তাদের অন্যদের চেয়ে বেশি সুদ প্রদান করে থাকে।

যুক্তরাজ্য প্রবাসী ড. হারুনুর রশিদ বলেন, বিগত সময়ের অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায় দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতার জন্য সবার মাঝে একটা ধারণা তৈরি হয়েছে যে, এখানে বিনিয়োগ করলেই মূলধন হারিয়ে যায়। খালি হাতে ফিরতে হয়। তাই অনেকেই বিনিয়োগ করার আস্থা হারিয়ে ফেলেছে।

কিন্তু এখন দেশের অবস্থা বেশ ভালো। তাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে আমাদের বিনিয়োগ করতে হবে।

হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুশফিক হোসেন চৌধুরী বলেন, কোরিয়া, চায়নাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিককে দেশে বিনিয়োগে উৎসাহ দেয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের ছাড় দেয়া হয়। তারা যদি ব্যবসায় করতে পারে তাহলে প্রবাসীরা বিনিয়োগ করতে পারবে না কেন।

সিলেটের মানুষ অন্য জেলার মানুষকে উষ্ণ আথিতেয়তায় গ্রহণ করেছে বলেই হবিগঞ্জে দেশের বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান তাদের ইন্ডাস্ট্রিজ স্থাপন করতে পেরেছে। প্রবাসীরা যদি সিলেটে বিনিয়োগ করতে চায় তাহলে আমি ব্যক্তিগতভাবে সহযোগিতা করব।

আজকের মুক্ত আলোচনা সভায় পররাষ্ট্র, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বিনিয়োগ বোর্ডসহ বিভিন্ন দপ্তরের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্তাদের আমন্ত্রণ জানানো হলেও তারা উপস্থিত না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রবাসীরা।

এ সময় আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান বজলু চৌধুরী বলেন, পররাষ্ট্র, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বিনিয়োগ বোর্ডসহ বিভিন্ন দপ্তরের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু তারা আমাদের ডাকে সাড়া দেয়নি।

তিনি বলেন, বিদেশে আমরা কোন কাজে কংগ্রেম্যানকে দাওয়াত দিলে তিনি আসতে না পারলে অন্তত ‘নো‘ লিখে পাঠিয়ে দেন বা তার অবর্তমানে অন্য কাউকে পাঠান। কিন্তু বাংলাদেশে মন্ত্রীরা বা সরকারি কোন কর্মকর্তাদের চিঠি বা ইমেইল দিলে সেখান থেকে কোন উত্তর পাওয়া যায় না। আমার মনে হয় তারা চিঠি বা ইমেইলটা খুলেও দেখেন না।

প্রবাসী বাঙ্গালি কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোশারফ আলম বলেন, আমাদের সংগঠনটি প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশে বিনিয়োগে আগ্রহী করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। পাশাপাশি বাংলাদেশের পর্যটন বিকাশে বিদেশি টুরিস্টদের আকর্শনের জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

এ সময় প্রবাসীদের বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং ভোটাধিকারের অধিকার ফিরিয়ে দেয় আহ্বান জানান এই প্রবাসী।

ব্রেকিংনিউজ/এএন/এসআই



আপনার মন্তব্য

শুধুই ঢাকা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং