Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » অর্থনীতি 

অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি পণ্যের চাহিদা বাড়ছে

অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি পণ্যের চাহিদা বাড়ছে
০৪ নভেম্বর ২০১৩, ২:৫৫ অপরাহ্ন Print

ব্যবসা-বানিজ্য ডেস্ক
অস্ট্রেলিয়াতে বাংলাদেশি পণ্যের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। সেই সঙ্গে দেশিয় বাজার সম্প্রসারণ হচ্ছে। তবে এই বাজার সুবিধা বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ধরতে পারছেন না এবং কাজে লাগাতে পারছেন না। যে কারণে সেখানে পন্য রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব হলেও নানা কারণে তা হচ্ছে না। অস্ট্রেলিয়ার বাজার পর্যবেক্ষণ ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাংলাদেশের ওষুধ, তৈরি পোশাক,  সিরামিক পণ্য, কোকারিজ ও গ্রোসারি পণ্যেও চাহিদা সবচেয়ে বেশি। তবে বাংলাদেশের এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িতরা বেশির ভাগই অস্ট্রেলিয়ার বাজারকে ছোট মনে করে সেখানে যাচ্ছেন না।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশিরা বলেছেন, এখানে ওষুধের দাম অনেক বেশি। কিন্তু বাংলাদেশের ওষুধ গুণগত মানের দিক থেকে অনেক ভালো। সেই সঙ্গে এটার দামও কম। অস্ট্রেলিয়াতে ওষুধের দাম বেশি বলে তাদের ওষুধের পেছনে অনেক টাকা চলে যায়। তারা মনে করেন বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মা, স্কায়ার গ্রুপের বেশ কিছু ওষুধ রয়েছে। যেগুলোর চাহিদা এখানে বেশি। এই দুটি কোম্পানি তাদের ওষুধ এখানে পাঠাতে পারে। তারা মনে করছেন, যদি বাংলাদেশের কেবল জ্বরের যে নাপা ওষুধটি আছে এটাই এখানে প্রচুর পরিমাণে বিক্রি করা সম্ভব। এমন আরও অনেক ওষুধ আছে।
 
দীর্ঘদিন ধরে অস্ট্রেলিয়াতে তৈরি পোশাকের ব্যবসা করেন শাহজাদা। তিনি জানান, এখানে পোশাক শিল্পের পণ্য রপ্তানির বড় সম্ভাবনা রয়েছে। আমাদের দেশের তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকরা ইউরোপ ও আমেরিকার বাজারে যত বেশি বাজারে পণ্য পাঠাতে চায় এখানকার ব্যাপারে ততোটা আগ্রহী নয় মনে করে বাজার ছোট। লাভ হবে কিনা চিন্তা করে। এই কারণে তারা অস্ট্রেলিয়ার বাজারে প্রচুর সম্ভাবনা থাকলেও চাহিদা থাকলেও প্রচুর পরিমাণে পোশাক রপ্তানি করছে না। তিনি বলেন, এখানে মানুষ কম হলেও এখানে চাহিদা বাড়ার মূল কারণ হচ্ছে অন্য দেশে একটি পোশাকে চাহিদা থাকলে এখানে আছে দশটি। কারণ এখানে অনেক পোশাকই একবারের বেশি দুবার অস্ট্রেলিয়ানরা পড়ে না। তিনি বলেন, তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের আরও বেশি পরিমাণে এই বাজারে আসতে হবে। বাজার দখল করতে পারলে এখান থেকে প্রচুর পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা আয় করা সম্ভব হবে।

অস্ট্রেলিয়ার আরেক  ব্যবসায়ী বলেন, এখানে বিভিন্ন সিরামিক কোম্পানির কোকারিজের পণ্যের চাহিদা রয়েছে। অন্য দেশের যেগুলো পাওয়া যায় এর দাম অনেক বেশি। এই কারণে সব সময় কেনা সম্ভব হয় না। তবে এখানে বাংলাদেশের সিরামিকের পণ্য গুনগত মান ভালো ও টেকসই বলে চাহিদা রয়েছে। কিন্তু সেইভাবে বাজার তৈরি হয়নি। বাংলাদেশের সিরামিক এখন বিভিন্ন দেশে যাচ্ছে। এই বাজারে আসলেও ভালো হবে। সিরামিক ব্যবসায়ীরা এই ব্যাপারে প্রয়োজনীয় যোগাযোগ করতে পারেন।

এই ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ার ট্রেড ডিপার্টমেন্টের একজন কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা চাইলে এখানে নতুন নতুন পণ্যেও বাজার তৈরি করতে পারে। সেই জন্য চেষ্টা থাকতে হবে। অন্যান্য বাজারে যতটা প্রতিযোগিতা করে বাংলাদেশকে টিকে থাকতে হচ্ছে এখানে মান বজায় রেখে যদি একবার প্রবেশ করতে পারে ও ধরে রাখতে পারে তাহলে এই খাত থেকে বাংলাদেশ প্রচুর পরিমাণে অর্থ আয় করতে পারবে। তবে কেবল ব্যবসায়ীরা আগ্রহী হলেই হবে না। এই ব্যাপারে আমাদের সরকারকে অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে পণ্য রপ্তানির জন্য ব্যবসায়ীরা কত সহজে কত বেশি সুবিধা নিতে পারেন সেই বিষটিতে জোর দিতে হবে।

ব্রেকিংনিউজ/অমৃ/এজেড



আপনার মন্তব্য

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং