Facebook   Twitter   Google+   RSS (New Site)

শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, পূর্বাহ্ন

প্রচ্ছদ » শিল্প-সাহিত্য 

`জীবনস্মৃতিতে মানুষ দেশ-বিজ্ঞান' বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

`জীবনস্মৃতিতে মানুষ দেশ-বিজ্ঞান' বইয়ের মোড়ক উন্মোচন
প্রতিবেদক ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, ৯:২৯ অপরাহ্ন Print

ঢাকা: প্রফেসর মুহাম্মদ ইব্রাহিমের আত্মজীবনী জীবনস্মৃতিতে মানুষ-দেশ-বিজ্ঞান বই সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবু সায়ীদ বলেন, তার আত্মজীবনীতে দেখা যায়, সে অনেক রক্ষণশীল পরিবারের সন্তান ছিল। ছোট বেলায় তাদের একটি নাটকের মহড়া তার দাদা ভেঙে দিয়েছিলেন। ঘটনা চলছে চলতে এক পর্যায়ে তিনি লিখেছেন, বারটা বেজে গেল।

সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বইটির প্রকাশনা উৎসব করা হয়। এতে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবু সায়ীদ ও এমিরেটাস প্রফেসর ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীসহ বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যাপক আবু সায়ীদ বলেন, বারোটা বেজে গেল-কথাটা দ্বারা তিনি অনেক বড় বিষয় বুঝাতে চেয়েছেন। আবার দাদার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিলেন তার মা। তিনি একপর্যায়ে গ্রামে না থেকে শহরে চলে আসেন এবং অসুস্থ হয়ে পড়েন।

প্রকাশনা উৎসবে অধ্যাপক আবু সায়ীদ আরও বলেন, জীবনের কিছু কষ্টকর মুহুর্ত বা কষ্টার্জিত সাফল্য এলেই মানুষ তার আত্মজীবনী লিখে। প্রফেসর ইব্রাহিম যে পরিবারে বেড়ে উঠেছেন, সেখান থেকে একজন বড় বিজ্ঞানী হওয়াটা স্বাভাবিক।

লেখকের কাছে বিজ্ঞান সাময়িকী সংখ্যা চেয়ে তিনি আরও বলেন, অনেকদিন আগে একবার আমি বিজ্ঞান সাময়িকীর সকল সংখ্যা সংগ্রহ করেছিলাম। তবে ওই সময় বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের বেহাল দশা থাকায় আমি তা সংরক্ষণ করে রাখতে পারিনি। আমি আবার মোহাম্মদ ইব্রাহিমের কাছে বিজ্ঞান সাময়িকীর সকল কপি চাইব, যেন স্মৃতি হিসাবে ও ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে রাখতে পারি।

মুক্তিযুদ্ধের অনেক দলিল প্রফেসর মোহাম্মদ ইব্রাহিমের বইয়ে আছে উল্লেখ করে প্রাবন্ধিক এমিরেটাস প্রফেসর ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ অনেকটা অগোছালো ছিল। সে সময়টাতে বাঙালিরা ঐক্যবদ্ধ ছিলেন না। তবে বাংলার মানুষের মধ্যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছিল। অগোছালো থাকলেও সবাই যে যার অবস্থান থেকে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

তিনি বলেন, ২৬ শে মার্চ জিয়াউর রহমানের স্বধীনতার যে ঘোষণা দিয়েছিলেন তা ওই সময়ের ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলো মনে করেছিল হয়তো এহিয়া খানের কোন প্রতিপক্ষ জিয়া খাঁন বা হিন্দু ধর্মের কেউ নাম পরিবর্তন করে জিয়া নামে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আগে রাজনীতির পাশাপাশি বিজ্ঞান চর্চা হত। তবে আশার বিষয় হল এখন তরুণরা বিজ্ঞান চর্চা করছে। এমনকি গ্রামের মানুষরাও বিজ্ঞান চর্চা করছে।

উল্লেখ্য, প্রফেসর মোহাম্মদ ইব্রাহিম নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূসের ছোট ভাই।

ব্রেকিংনিউজ/এএন/এমএইচ



আপনার মন্তব্য

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত ৩২


উপরে

ব্রেকিং